কাদেরকে সিঙ্গাপুর নিতে ঢাকায় আসছে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স

0
.

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তার চিকিৎসায় সিঙ্গাপুর থেকে বিশেষ চিকিৎসক দল ঢাকায় আসছে। এয়ার অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে চিকিৎসকরা রবিবার (৩ মার্চ) সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ ঢাকায় পৌঁছাবেন বলে নিশ্চিত করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) দায়িত্বশীল সূত্র।

সূত্র জানায়, সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকরা ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নেবেন। তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া সম্ভব না হলে তারা এখানেই চিকিৎসা দেবেন মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এই দলে রয়েছেন।

এদিকে, অন্য একটি সূত্র জানায়, ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার জন্য ভারত থেকেও চিকিৎসক দলকে ডাকা হয়েছে।

এর আগে, রোববার বিকেলের ওবায়দুল কাদেরকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়ার কথা জানান বিএসএমএমইউ-এর প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক। তিনি জানান, ওবায়দুল কাদেরের শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা হওয়ার কারণে তাকে বিশেষ ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এর আগে হৃদযন্ত্রে পাওয়া তিনটি ব্লকের মধ্যে একটিতে স্টেন্ট (রিং) পরানোর পরও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকায় তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

আজ রবিবার সকালে ওবায়দুল কাদেরকে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে এনজিওগ্রাম শেষে তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লকে রিং পরানো হয়। রিং পরানোর পর তাকে কার্ডিওলজি বিভাগের সিসিইউতে রাখা হয়।

ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় বিএসএমএমইউয়ের হৃদরোগ বিভাগের পক্ষ থেকে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বিএসএমএমইউ কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসানের নেতৃত্বে মেডিকেল বোর্ডে আরও রয়েছেন অধ্যাপক ডা. চৌধুরী মেশকাত আহমেদ চৌধুরী, অ্যানেস্থেশিয়া বিভাগের অধ্যাপক ডা. দেবব্রত ভৌমিক, অধ্যাপক ডা. একেএম আক্তারুজ্জামান, কার্ডিও সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. রেজওয়ানুল হক, অধ্যাপক অসিত বরণ অধিকারী, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান, ডা. তানিয়া সাজ্জাদ, প্রিভেনটিভ অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক প্রমুখ।

এদিকে, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বিএসএমএমইউতে ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে যান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন