সংবাদপত্রের কণ্ঠ রুদ্ধ করার চক্রান্তের বিরুদ্ধে সোচ্ছার হতে হবে: পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ

0
.

স্বাধীন সাংবাদিকতার কণ্ঠ পুরোপুরি বন্ধ ও মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে রুদ্ধ করার জন্য প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে চট্টগ্রাম সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ নেতৃবৃন্দ।

আজ রবিবার এক বিবৃতিতে পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ বলেন, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। বাক স্বাধীনতার উপর হামলার জন্য এই মামলা, যা গণমাধ্যমের স্বাধীনতার জন্য ভয়ানক ঘটনা। ইতিপূর্বেও একইভাবে দৈনিক আমার দেশ বন্ধ করে সম্পাদক মাহামুদুর রহমানকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দিগন্ত টেলিভিশন ও ইসলামিক টেলিভিশনসহ বহু গণমাধ্যম।

বিবৃতিতে বলা হয়, যারা ভিন্ন মত পোষণ করতে চায়, যারা ভিন্ন কথা বলতে চায়, তাদের নির্মূল ও নিশ্চিন্ন করার জন্য শাসকদল গত ১ দশক ধরে চক্রান্ত করছে।

পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ সংবাদপত্রের স্বাধীনতার কণ্ঠকে রুদ্ধ করার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ করার জন্য দলমত নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদ মূখর হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

বিবৃতিদাতারা হলেন, সাংবাদিক জাহিদূল করিম কচি, ইসকান্দর আলী চৌধুরী, মোঃ শাহনেওয়াজ, সাইফুল ইসলাম শিল্পী, ডাঃ খুরশিদ জামিল, ডাঃ বেলায়েত হোসেন ঢালি, ডাঃ সরোয়ার আলম, ডাঃ সাকিবুর রশিদ, ডাঃ ঈসা চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার জানে আলম সেলিম, কে. এম সুফিয়ান, এড. কবির চৌধুরী, এড. কফিল উদ্দিন, এড. বদরুল আনোয়ার, এড. নাজিম উদ্দিন, এড. এনামুল হক, এড. নুরুল ইসলাম, এড. আবদুর সাত্তার, এড. জহুরুল আলম, এড. নাজিম উদ্দিন, এড. মফিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, এড. জালাল উদ্দিন পারভেজ, অধ্যাপক ছালেহ জহুর, অধ্যাপক নসরুল কাদির, অধ্যাপক শাহ আলম প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই