সীতাকুণ্ডে স্কুল ছাত্রীকে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় পরিবারের উপর হামলা

0
.

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
সীতাকুণ্ডে দশম শ্রেণীর এক স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় উক্ত শিক্ষার্থীর পরিবারের উপর বখাটেরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) রাত ৯ টার সময় উপজেলার ভাটিয়ারী ইউনিয়নের মাদামবিবিরহাটস্থ জাহানাবাদ এলাকার আমিন ড্রাইভারের বাড়িতে এঘটনা ঘটে।

উক্ত ঘটনায় স্কুল শিক্ষার্থীর পিতা মোঃ আবুল হোসেন বাদী হয়ে রবিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ২ এ মামলা দায়ের করেন।

সি আর মামলা (নং ৭৬/২০২০) মামলা সূত্রে জানাযায়, মাদামবিবিরহাট শাহজাহান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী নাদিয়া আক্তারকে প্রতিদিন স্কুলে যাওয়া আসার পথে একই এলাকার মোঃ হোসেনের বখাটে পুত্র জাহেদ কুরুচীপূর্ণ অঙ্গভঙ্গী এবং অশালীন কথাবার্তা বলে উক্ত্যক্ত করে আসছে। এতে নাদিয়া প্রতিবাদ করলে জাহেদ আরো বেশী উক্ত্যক্ত শুরু করে। এরপর নাদিয়ার বাবা আবুল হোসেন বিষয়টি বখাটে জাহেদের পিতা-মাতাকে জানান।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) রাত ৯ টার সময় জাহেদ ক্ষিপ্ত হয়ে সাহেদ ও অভি মিলে নাদিয়ার ঘরে প্রবেশ করে তাকে উঠানে নিয়ে গিয়ে এলোপাতাড়ী কিল,ঘুষি ও লাথি মেরে নির্যাতন চালায় এবং শরীর থেকে কাপড় ছিড়ে শ্লীলতাহানী করে। এসময় নাদিয়ার চিৎকারে তার মা শারমিন বেগম দৌড়ে গিয়ে তাদের কাছ থেকে মেয়েকে উদ্ধার করে ঘরের ভিতরে নিয়ে যান। এর কিছুক্ষণ পর জাহেদ দলবল নিয়ে নাদিয়ার ঘরে ঢুকে তার মা শারমিন আক্তারকেও মারধর করে।

মামলা সূত্রে আরো জানা যায়, তিন নং আসামী অভি নাদিয়ার গলা থেকে আটআনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন কেড়ে নেয় ও ঘরের সমস্ত জিনিসপত্র ভাংচুর করে এবং যাওয়ার সময় নাদিয়ার পরিবারকে বেশি বাড়াবাড়ি করলে হত্যার হুমকি দিয়ে এলাকা ছাড়া করার ঘোষণা দেয়। এঘটনায় নিরাপাত্তাহীনতায় ভোগা নাদিয়ার পিতা মোঃ আবুল হোসেন বাদী হয়ে মোঃ জাহেদ (২২), মোঃ সাহেদ (২৪), মোঃ অভি, মোঃ হাসেম (৪০) এবং মোঃ হোসেন (৫২) কে আসামী করে চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ২ এ মামলা দায়ের করেন।

এব্যাপারে নাদিয়ার পিতা মোঃ আবুল হোসেন বলেন, আমি আমার পরিবার নিয়ে চরম নিরাপাত্তাহীনতায় জীবন-যাপন করছি। যেকোন সময় তারা আমার পরিবারের উপর আঘাত আনতে পারে। এব্যাপারে আমি প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি যাতে আসামীদেরকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনে।

কোন মন্তব্য নেই