করোনার থাবায় বিধস্ত ইতালি: মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে সাড়ে ৭ হাজার

0
.

করোনার বিরুদ্ধে ইতালির লড়াইটা ক্রমশ একপেশে হয়ে পড়েছে। চিনের বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়েও করোনাভাইরাসকে বাগে আনতে ব্যর্থ ইতালি। প্রতিদিন যে হারে শতে শতে মানুষ মারা যাচ্ছে, তাতে ডাক্তারদেরও বিধ্বস্ত অবস্থা। ইতিমধ্যে ৩১ ডাক্তার করোনায় মারা গেছেন। তাঁরা প্রত্যেকেই করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শামিল ছিলেন। ইতালির মেডিক্যাল টিমের সদস্য।

করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় ইতালিতে ৬৮৩ জন মারা গেছেন। মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা রোজ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) এই সংখ্যাটা ছিল ৭৪৩ জন। এই নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৫০৩ জনে। এর মধ্যে ৩১ জন মেডিক্যাল টিমের সদস্য।

এখন পর্যন্ত যে কোনও দেশে করোনায় এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যু। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ২১০ জন, যা গতকালের চেয়ে কম। মোট আক্রান্ত ৭৪ হাজার ৩৮৬ জন।

জনগণকে সুরক্ষা দিতে ইতালি সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৯ হাজার ৩৬২ জন। যা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ডাক্তারদের কিছুটা হলেও আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে।

এদিকে, ইতালির নাগরিক সুরক্ষা সংস্থার প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেল্লি অসুস্থতার কারণে এদিন সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেন। সম্প্রতি তিনি দাবি করেন, ইতালিতে করোনায় সরকারি ভাবে যত মৃত্যু দেখানো হয়েছে, প্রকৃত সংখ্যাটা তার ১০ গুণেরও বেশি।

ইতালির ২০ অঞ্চলের মধ্যে লোম্বারদিয়ায় করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত। বুধবার এই অঞ্চলেই মারা গেছে ২৯৬ জন। শুধু এ অঞ্চলেই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ৪৭৪ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ৩৪৬ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭ হাজার ২৮১ জন।

ইতালির পরিস্থিতি সামাল দিতে চিন ছাড়াও আরও কয়েকটি দেশ থেকে মেডিক্যাল টিম সেখানে গিয়েছে। চিনের মেডিক্যাল টিমটি কাজ করছে বেরগামোতে। কিউবার ৫২ সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম রয়েছে ক্রেমনাতে। রাশিয়া থেকে আসা ১২০ সদস্যের মেডিক্যাল টিম কাজ করছে লোম্বারদিয়া অঞ্চলে।

করোনা মোকাবিলায় ইতালিও লকডাউন করছে। তবে, গণপরিবহণ এখনও বন্ধ করা হয়নি। সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, চিন থেকে আরও একটি ৩০ সদস্যের মেডিক্যাল টিম বুধবার ইতালিতে পৌঁছেছে। তাদের সঙ্গে ৩ লক্ষ মাস্ক-সহ প্রায় আট টন চিকিৎসাসামগ্রী রয়েছে।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী জোসেপ্পে কন্তের আবেদনে সাড়া দিয়ে দেশের এই দুর্দিনে ৭ হাজার ২২০ জন অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসক, নার্স-সহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় স্পেন ৪৪৩, জার্মানিতে ২৭, সুইত্জারল্যান্ডে ২৭, পর্তুগালে ১৪, নেদারল্যান্ডে ৮০, অস্ট্রিয়ায় ২, বেলজিয়ামে ৫৬, নরওয়েতে ২, বাংলাদেশে ১ সুইডেন ৪, ডেনমার্ক ২ এবং গ্রিস ২ জন মারা গেছেন। বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২০,৮২৮। আক্রান্ত ৪ লক্ষ ৬০ হাজার ৬৫ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লক্ষ ১৩ হাজারেরও বেশি আক্রান্ত।

কোন মন্তব্য নেই