চট্টগ্রামে ডাক্তার পুলিশ ও ৩ মাসের শিশুসহ ৬৫ জন করোনায় আক্রান্ত

0
.

চট্টগ্রামে এবার তিনমাসের শিশুসহ ৬৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ডাক্তার, পুলিশ সদস্য ও মৃত ব্যক্তিও রয়েছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩৩ জনে দাঁড়িয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির আজ মঙ্গলবার সকালে এ তথ্য জানান। তিনি জানান, সোমবার রাতে চট্টগ্রামের তিনটি ও কক্সবাজারের একটিসহ মোট চারটি ল্যাবে পৃথক নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে এসব আক্রান্ত শনাক্ত হয়।

এছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগের অন্যান্য জেলায় আরও ১৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। সবমিলিয়ে সর্বোচ্চ ৮১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের বিআইটিআইডি ল্যাবে ২৩৪ নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ৩৯ জনের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এদের মধ্যে চট্টগ্রামের ৩১ জন, নোয়াখালীর ৭ জন ও ফেনীর একজন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) ল্যাবে ৫৬ নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ১৫ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে। এদের সবাই চট্টগ্রাম জেলার।

এদিকে চট্টগ্রাম সিভাসু ল্যাবে ৯৩ নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ২৬ জনের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ১৮ জন চট্টগ্রামের, নোয়াখালীর ৭ জন এবং ফেনীর একজন। এর বাইরে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রামের একজনের শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি জানান, বিআইটিআইডিতে শনাক্ত চট্টগ্রামের ৩১ জনের মধ্যে পটিয়া উপজেলার ১১, সাতকানিয়ার ৩, মহানগরীর ১৬ ও চট্টগ্রাম ফিল্ড হসপিটালে একজন চিকিৎসাধীন আছেন। এদের মধ্যে পটিয়া পৌরসভায় তিন মাস ও ১১ বছর বয়সী দুই শিশু আছে।

নগরীর ছোটপোল এলাকায় ১২ বছরের এক শিশু আছে। নগরীর পাঁচলাইশ ও আগ্রাবাদের দুই নারী চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন। নগরীর চকবাজারে ৬৫ বছর বয়সী মৃত এক পুরুষের নমুনায় করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এছাড়া নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইনের বাসিন্দা এক কনস্টেবল করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

সিএমপির বিশেষ শাখার উপকমিশনার (উত্তর) মো. আব্দুল ওয়ারিশ খান জানান, ৪০ বছর বয়সী ওই পুরুষ কনস্টেবল ট্রাফিক বিভাগের উত্তর জোনে কর্মরত।

সিভিল সার্জন আরও জানান, চমেকে শনাক্ত ১৫ জনের মধ্যে মহানগরীর ১৩ জন, পটিয়া উপজেলা ও সীতাকুন্ড উপজেলার একজন করে আছেন। সিভাসুর ল্যাবে শনাক্ত চট্টগ্রাম জেলার ১৮ জনের মধ্যে সাতকানিয়া, হাটহাজারী ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলার দুই জন করে ৬ জন এবং সীতাকুন্ড উপজেলার একজন আছেন। বাকি ১১ জন চট্টগ্রাম মহানগরীর। কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার একজন শনাক্ত হয়েছেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামের এ পর্যন্ত ৩৩৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছে। এরমধ্যে মারা গেছে ২২ জন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৬৪ জন।

কোন মন্তব্য নেই