চট্টগ্রামে অপহৃত শিশু সিলেটে উদ্ধার, ২ অপহরণকারী গ্রেফতার

0
sisu-apoharan-cnnbd
ছবি: প্রতিকী।

চট্টগ্রাম নগরীর ইপিজেড থানা এলাকা থেকে অপহরণ করা দুই বছরের শিশু আজনাইনকে ৭ দিনের মাথায় সিলেট থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় গ্রেফতার করা হয় ২ অপহরণকারীকে। মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রামের ইপিজেড থানা পুলিশ সিলেট সদরে এ অভিযান চালায়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো-পটুয়াখালীর ইটবাড়িয়া গ্রামের শাহজালালের পুত্র সাহাবুদ্দিন লিমন (২৯) ও কুড়িগ্রাম জেলার, উলিপুর থানার, কুডার পাড় গ্রামের, মৃত আইয়ুব আলীর স্ত্রী মরিয়ম (৪০)।

অপহৃত শিশু আজনাইনের মা মারুফা বেগম জানায়, আমি সিইপিজেডস্থ সেকশন-৭ নামক একটি পোশাক কারখানায় কাজ করি। পারিবারিক স্বচ্ছলতা না থাকার কারনে আজনাইনের আব্বুকেও করতে হয় দিনমজুরের কাজ। আর তাইতো পেটের দায়ে, দুই বছরের শিশু আজনাইনকে অন্যের কাছে লালন পালন করতে দিয়ে ছুটতে হয় কর্ম লক্ষ্যে। অজনাইনের লালন পালনের ভার দেওয়া হয় পাশ্ববর্তী ভবনের মরিয়ম (৪০) বেগমকে। আর তার খরচ বাবদ প্রতি মাসে তাকে দেওয়া হয় দুই হাজার টাকা। তার কাছে লালন পালন করতে দেওয়াটাই কাল হয়ে দাড়ায়। গত ১০ নভেম্বর তার সহযোগী লিমনকে নিয়ে আমার আজনাইনকে অপহরন করে ৪০ হাজার টাকা মুক্তি পণ দাবি করে। তাৎক্ষনিক ভাবে নিকটস্থ থানায় এব্যাপারে জানালে দীর্ঘ ৭ দিন পর আমার আজনাইনকে আমার কাছে ফিরিয়ে দেয় পুলিশ।

ইপিজেড থানায় দায়ের করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নাছিম পাঠক ডট নিউজকে জানায়, গত ১০ই নভেম্বর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করা হলে তার তদন্তের দায়িত্ব ভার আসে আমার কাছে। অপহৃত আজনাইনের পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে চাওয়া ৪০ হাজার টাকার মুক্তিপণের সূত্র ধরে, আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে, অপহরণকারীর লোকেশন চিহ্নিত করে, সিলেটের সদর থানাধীন এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয় ২ বছরের শিশু আজনাইনকে। এসময় ঘটনাস্থান থেকে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত অপহরণকারীদের।

এব্যাপারে থানায় দায়ের করা শিশু ও নারী নির্যাতন দমন আইনে গ্রেফতারকৃতদের বিজ্ঞ আদলতে প্রেরণ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদলত ৩ দিনের রিমান্ড মনজুর করেন।

কোন মন্তব্য নেই