পটিয়ায় কিশোর গ্যাংয়ের অস্ত্রের মহড়া, দু’পক্ষের সংর্ঘষে আহত ১০

0
.

পটিয়া প্রতিনিধিঃ

গতকাল বুধবার রাতে পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনের মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এ ঘোষণার পর সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা এখন মাঠে ব্যস্ত। কিন্তু নির্বাচনী মাঠে শুরু হয়ে গেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের অস্ত্রের মহড়া।

গতকাল বুধবার রাত সাড়ে দশটার দিকে পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ গোবিন্দারখীল এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের দুই পক্ষের মধ্যে মোবাইল ছিনতাই নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। দুপক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপে আহত গোবিন্দারখীল এলাকার আবু ছৈয়দের পুত্র সজীব (২২) ও একই এলাকার আবদুস ছবুরের পুত্র মুজিবুর রহমান (৫০)। তারা বর্তমানে পটিয়া হাসপাতাল থেকে চিকিৎসাধীন আছেন। কমবেশি আহত হওয়া অন্যদের নাম পাওয়া যায়নি।

সূত্রে জানা যায় , পৌরসভা ও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কিশোর গ্যাংয়ের একাধিক গ্রুপ রয়েছে। তাদের আধিপত্য নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। উপজেলার আশিয়া এলাকা থেকে এক যুবক গোবিন্দারখীল এলাকায় বেড়াতে আসেন। ওই এলাকার কিশোর গ্যাংয়ের কিছু যুবক তাকে মারধর করে মোবাইল ফোন ছিনতাই করে। এর জের ধরে এলাকার দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া ও মারামারির ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পটিয়া থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে কিশোর গ্যাংয়ের কোন সদস্য গ্রেপ্তার করতে পারেনি। স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন, কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ গোবিন্দারখীল এলাকায় দীর্ঘদিন বসবাস করে যাচ্ছেন। যার ফলে এলাকায় প্রায় সময় চুরি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকা- ঘটে যাচ্ছে।

এব্যাপারে কাউন্সিলর আবদুল মান্নান জানান, মোবাইল ও টাকা ছিনতাইয়ের জের ধরে কিছু যুবকের মধ্যে মারামারি হয়েছে।

পটিয়া থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, মোবাইল নিয়ে কিছু যুবকের সাথে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পাননি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবেন। স্থানীয় কাউন্সিলর আবদুল মান্নান উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছেন বলে জানান ওসি।

কোন মন্তব্য নেই