ষাটোর্ধ্ব বিবাহিত প্রকৌশলীকে গোপনে বিয়ে করেছেন পপি!

0
.

শোনা যাচ্ছে এক প্রকৌশলীকে বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী পপি। এমন খবর এখন চলচ্চিত্রপাড়াসহ সর্বত্র গুজব রটেছে। চলচ্চিত্র জগতের পপির কাছের কিছু মানুষ বলছেন প্রায় এক বছর আগে ষাটোর্ধ্ব বিবাহিত এক প্রকৌশলীকে গোপনে বিয়ে করেছেন পপি। ওই প্রকৌশলী এর আগে আরও দুটি বিয়ে করেন। তিনটি সন্তানও রয়েছে তাঁর। এদিকে পপি দীর্ঘদিন ধরে তাঁর মোবাইল বন্ধ রেখেছেন। ফলে সত্য-মিথ্যা যাই হোক না কেন, গুঞ্জনটি বেগবান হচ্ছে।

গতকাল তাঁর তিনটি নম্বরের একটি খোলা পেলেও সেটি রিসিভ করেন পপির ছোট বোন ফারজানা। পপিকে চাইলে ফারজানা জানান, তিনি ঢাকার বাইরে আছেন এবং পপি ঢাকায়। পপির এই নম্বরটি এখন তিনিই ব্যবহার করেন। বিবাহিত জীবন কেমন কাটছে পপির এ কথা জানতে চাইলে কিছুক্ষণ চুপ থেকে ফারজানা জানতে চান পপির বিয়ের খবর কীভাবে পেলাম। তাঁকে বলা হয় বিশ্বস্ত একটি সূত্র থেকে পেয়েছি। জবাবে ফারজানা বলেন, ‘বোনের বিয়ের খবর আমিই জানি না আর আপনারা জানেন, এটি কোনো কথা। আমার বোন কোনো বিয়ে করেনি, সব মিথ্যা আর বানোয়াট।’ পপি দীর্ঘদিন ধরে নিউ ইস্কাটনের গাউছ নগরে একটি ভাড়া বাসায় বাবা-মা, ভাই-বোন নিয়ে থাকতেন। কয়েক মাস আগে বারিধারা ডিওএইচএসের একটি আলিশান ফ্ল্যাটে উঠেছেন তিনি। তখনই চলচ্চিত্র জগতের মানুষসহ সবার প্রশ্ন ছিল পপির হাতে দীর্ঘদিন ধরে চলচ্চিত্রসহ অন্য কোনো কাজ নেই কিন্তু তিনি এমন দামি ফ্ল্যাট কিনলেন কীভাবে? গুঞ্জন আছে ওই প্রকৌশলীই নাকি পপিকে ফ্ল্যাটটি কিনে দিয়েছেন।

জানা গেছে, ওই প্রকৌশলীর কাকরাইলে একটি কমার্শিয়াল টাওয়ার রয়েছে। যাতে আছে একটি মার্কেট ও কিছু ফ্ল্যাট। চলচ্চিত্র জগতের পপির ঘনিষ্ঠজনরা আরও জানান, ওই প্রকৌশলী পপির সঙ্গে থাকেন না। আগের স্ত্রীদের সঙ্গেই থাকেন। তবে পপির বাসায় তাঁর যাওয়া-আসা রয়েছে। গত বছরের আগস্টে একটি জাতীয় দৈনিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গোপন বিয়ে নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পপি বলেছিলেন, ‘বিয়ে করা কোনো অপরাধ নয়, বিয়ে করা কোনো পাপ নয়। নতুন একটা জীবন শুরু করা। অনেককেই দেখেছি, এই শুভ কাজ গোপনে করছেন, মনে হয় তাঁরা যেন পাপ করছেন। এই শুরুটা গোপনে বা লুকিয়ে করার কোনো মানে হয় না। আমি বিয়ে করলে ঢাকঢোল পিটিয়েই করব।’ চলচ্চিত্রকারদের প্রশ্ন, পপির ভাবনা যদি এমনই হয়, তাহলে বিয়ের কথা লুকিয়ে তিনি এখন কি করলেন?

কোন মন্তব্য নেই