টিকা নিলেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী নওফেল

নিজে টিকা নিয়ে বিএনপির অপপ্রচারের জবাব দিলাম- ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ

0
.

চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি নিজে ভ্যাকসিন নিয়ে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন

আজ রবিবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তিনি ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। এর পর ভ্যাকসিন নেন চট্টগ্রামের বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। এখানে পর্যায়ক্রমে টিকা নেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এস এম হুমায়ুন কবির, চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির, সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি, চসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। এরপর তাদের সকলকে পর্যবেক্ষণ ইউনিটে রাখা হয়।

নিজ শরীরে ভ্যাকসিন নেয়ার পর ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ থেকে সারাদেশে ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পৃথিবীর অনেক দেশে যেখানে ভ্যাকসিন পৌঁছায়নি, সেখানে আমাদের দেশে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বের কারণে ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আজ করোনার টিকা নিয়ে সব অপপ্রচারের জবাব দিলাম।

টিকা নেওয়ার অনুভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি বলেন, টিকা নেওয়ার পর আমার তেমন কোন ব্যথা লাগেনি। কোন অসুবিধা হয়নি। একদল অনর্থক অপপ্রচার চালাচ্ছে। ঠিকা দিলে আপনি তো সেইফ, তাই না? সবার এই টিকা নেওয়া উচিত।

টিকা নেওয়ার পর সাংবাদিকদের উপমন্ত্রী নওফেল বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া বা কোনো সেনসেশন বা নেগেটিভ কোনোকিছু অনুভব করছি না। যে কোনো ধরনের ওষুধেরই কিন্তু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে। সুতরাং এটা নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমরা যার আজ ভ্যাকসিন নিয়েছি, আমরা এটা নিয়ে নেগেটিভ কিছু অনুভব করছি না। তিনি আরো বলেন, আপাতত অগ্রাধিকার তালিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে নিবন্ধন করা হচ্ছে। একটি নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠী, যাদের মধ্যে জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যম ব্যক্তি, স্বাস্থ্যখাতের লোকজন যারা সবচেয়ে বেশি মানুষের কাছে যান, তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে সবাই পাবেন এবং আশা করি সবাই ভ্যাকসিন নেবেন। টিকা নিয়ে চসিক প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী জানান, চট্টগ্রাম নগরে ৬০ লাখ মানুষের বাস। আমাদের বরাদ্দ ১ লাখ ৫৪ হাজার।

আজ চমেক হাসাপাতালে স্বাস্থ্যকর্মী ও ৫৫ বছরের বেশি বয়সী যারা রেজিস্ট্রেশন করেছেন, তাদের টিকাদান শুরু হলো। ১০টি বুথে এ কার্যক্রম চলছে। আমি সবাইকে বলবো কোনো ধরনের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে টিকা নিন। যে কোনো ধরনের অবস্থার জন্য আমরা প্রস্তুত আছি। যিনিই টিকা নেবেন তাকে আমরা ১ ঘণ্টা আমাদের পর্যবেক্ষণে রাখবো। এছাড়া টিকা দেওয়ার আগেই গ্রহিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।

কোন মন্তব্য নেই