হঠাৎ করে কেজি ১০ টাকা বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম

0
.

হঠাৎ করেই বাজারে বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম। একদিনের ব্যবধানে খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি প্রায় ১০ টাকা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। আর পাইকারি বাজারে কেজিতে বেড়েছে ৭-৮ টাকা পর্যন্ত। ক্রেতাদের অভিযোগ ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে রোজা আসার আগেই পেয়াজের দাম বাড়িয়ে তুলেছে।

পেঁয়াজের হঠাৎ এই দাম বাড়ার কারণ নিয়ে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলেন, বাজারে এখন দেশি যে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে, তা মুড়ি কাটা। এই পেঁয়াজের সরবরাহ আস্তে আস্তে কমে যাচ্ছে। ফলে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।

অপরদিকে খুচরা ব্যবসায়ীরা বলেন, পেঁয়াজের সরবরাহ কমার পাশাপাশি রমজানের সময় এগিয়ে আসাও পেঁয়াজের দাম বাড়ার একটা কারণ। মাসখানেক পরেই রমজান শুরু। এই রমজানকে কেন্দ্র করেই আগে থেকে পেঁয়াজের দাম বাড়ানো হচ্ছে। রোজায় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে যাতে কেউ এমন অভিযোগ করতে না পারে।

আজ রবিবার রাজধানীর মিরপুর-২, কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া, কারওয়ান বাজার, হাতিরপুল বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মানভেদে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪৫ টাকা। যা গত শুক্রবারও ৩০ থেকে ৩৫ টাকার মধ্যে ছিল। কিন্তু শনিবার হঠাৎ করেই পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। এ কারণে খুচরা ব্যবসায়ীরাও দাম বাড়িয়ে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন।

কাজীপাড়ার ব্যবসায়ী মো. আলমগীর পেঁয়াজের দাম নিয়ে বলেন, এভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়বে ভাবতেই পারিনি। আগে যদি জানতাম এভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়বে, তাহলে বেশি করে পেঁয়াজ কিনে রাখতাম।

কারওয়ান বাজারে ৪০ টাকা কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করা স্বপন মিয়া বলেন, আগে পাইকারি বাজার থেকে ২৫ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ কিনেছি। শনিবার সেই পেঁয়াজ ৩৫ টাকা কেজিতে কিনতে হয়েছে। এই দামে পেঁয়াজ কিনে অন্যান্য খরচ দিয়ে ৪০ টাকার নিচে বিক্রি করা যায় না।

শ্যামবাজারের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও রাজ ট্রেডার্সের মালিক হাজী মোহাম্মদ মাজেদ এ বিষয়ে জানান, আগে আমরা পেঁয়াজের কেজি ২৫-২৮ টাকা বিক্রি করেছি। এখন ৩৬-৩৭ টাকা কেজি বিক্রি করতে হচ্ছে।

কোন মন্তব্য নেই