মামুনুল হক কাণ্ডে সীতাকুণ্ডে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে অব্যাহতি

0
প্রচার সম্পাদক মোঃ আজিজুল হক আজিজ।                                   ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দিন।

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
হেফাজতে ইসলামের যুগ্ন মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের পক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া এবং শেয়ার করায় সীতাকুণ্ড উপজেলায় দুইজন ছাত্রলীগ নেতাকে সংগঠনের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এরা হচ্ছে উপজেলার ৯নং ভাটিয়ারী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দিন এবং ৮নং সোনাইছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ আজিজুল হক আজিজ।

ভাটিয়ারী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ শাহিন আহমেদ ও সোনাইছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিনের সাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

.দুই ছাত্রলীগ নেতার অব্যাহতি বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ শিহাব উদ্দিন বলেন, দুইজনই হেফাজতের যুগ্ন মহাসচিব মামুনুল হকের পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়েছে যা সংগঠনের নীতি আদর্শ ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ। এ কারনে সংগঠন থেকে দুইজনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

ছাত্রলীগ নেতারা জানান, সংসদে হেফাজতের যুগ্ন মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্যের বিরোধিতা করে একব্যক্তি ফেইসবুক স্ট্যাটাস দেয়। আর সেটি শেয়ার করে ভাটিয়ারী ইউনিয়ন ২নং ওয়ার্ড সভাপতি গিয়াস উদ্দিন।

অপরদিকে মাওলানা মামুনুল হকের ঘটনা নিয়ে তারপক্ষে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয় সোনাইছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগ প্রচার সম্পাদক আজিজ। দুইজনের বিষয়টি দলের দৃষ্টিগোচর হলে সংগঠনের নীতি আদর্শ ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাদেরকে সংগঠনের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এব্যাপারে সোনাইছড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ আজিজুল হক আজিজ বলেন, আমি দীর্ঘদিনের মুজিবাদর্শের একজন সৈনিক। জ্ঞান হওয়ার পর থেকেই আমি এ আদর্শ লালন করছি। আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়ার কারণে কে বা কারা আমার আইডি থেকে মামুনুল হকের পক্ষে স্ট্যাটাস দেয়। আইডি উদ্ধার হওয়ার পর আমি পোষ্টটি ডিলেট করে দিই। দল থেকে অব্যাহতির বিষয়টি দুঃখজনক।

ভাটিয়ারী ছাত্রলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমার ব্যবহৃত মোবাইল সেটটি চুরি হয়ে যায়। যারা চুরি করেছে তারাই পোষ্টটি শেয়ার করেছে। মোবাইল চুরির বিষয়টি আমি থানাকেও অবহিত করেছি।

কোন মন্তব্য নেই