হাসপাতালের হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে ৭০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

0
.

নড়াইল আধুনিক সদর হাসপাতালের হিসাবরক্ষক জাহানারা খাতুন লাকীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ কারণে হাসপাতালে সমালোচনার ঝড় বইছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, হিসাবরক্ষক জাহানারা খাতুন লাকী হাসপাতালের ইউজার ফিসের টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। যার পরিমাণ ৭০ লাখ টাকার মতো হবে। ইউজার ফিস অর্থাৎ রোগীদের নিকট টিকিট বিক্রি ও বিভিন্ন পরীক্ষা বাবদ আদায়কৃত টাকা আত্মসাতের ঘটনা জানাজানি হওয়ায় পরও সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কের নীরব ভূমিকা নিয়ে সর্বমহলে সমালোচনার ঝড় বইছে।

আরও জানা গেছে, ২০১৯ সালের জুলাই মাস থেকে ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত ইউজার ফিসের কোনো টাকা জমা দেয়া হয়নি। অথচ ভুয়া বিল ভাউচার ও চালান কপি হাসপাতালে জমা দিয়েছেন। মাসের পর মাস টাকা জমা না দিয়ে তিনি নিজের আখের গুছিয়েছেন।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ৫ এপ্রিল ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন ২০১৯ সালের জুলাই থেকে ২০২১ মার্চ পর্যন্ত কোনো টাকা ব্যাংকে জমা হয়নি। নীতিমালায় রয়েছে প্রতি মাসের টাকা পরের মাসের প্রথম সপ্তাহে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংকে জমা করার নির্দেশ রয়েছে। কিন্তু জাহানারা খাতুন লাকী আদায়কৃত টাকা জমা দেননি।

এ বিষয়ে জাহানারা খাতুন লাকীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করে সংবাদ প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মুশিউর রহমান বাবু বলেন, টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য জাহানারা খাতুন লাকীকে বলা হয়েছে। প্রয়োজনে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নড়াইল সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আবদুস শাকুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ব্যাংকে গিয়ে জানা গেছে হিসাবরক্ষক জাহানারা খাতুন লাকী ব্যাংকে টাকা জমা দেননি। এরপর তাকে টাকা জমা দেয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই