নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের নিন্দা

জিয়া স্মৃতি জাদুঘর নিয়ে অচিন বালকদের বাড়াবাড়ি মুক্তিযুদ্ধ অবমাননা

0
.

স্বাধীনতার ঘোষক, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, একাত্তরের রণাঙ্গণের বীর মুক্তিযোদ্ধা, জেড ফোর্সর অধিনায়ক, সেক্টর কমান্ডার ও ১৬ কোটি গণমানুষের প্রাণস্পন্দন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম এর স্মৃতি বিজড়িত স্থাপনা চট্টগ্রাম জিয়া স্মৃতি জাদুঘরের নাম পরিবর্তনের আন্দোলনের নামে তামাশা অচিন বালকদের বাড়াবাড়ি সরাসরি মুক্তিযুদ্ধ অবমাননা উল্লেখ করে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে  নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম চট্টগ্রাম মহানগর নেতৃবৃন্দ।

 

এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ। বলেন, মহান স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমান দেশি-বিদেশি চক্রান্তে নিহত হয়েছিলেন। তিনি আমাদের জাতীয় ইতিহাসের নানা ক্রান্তিলগ্নে নিজের জীবনকে তুচ্ছ জ্ঞান করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে বীর দর্পে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার নজির স্থাপন করেছেন।’

বিবৃতিদাতারা হলেন- ফোরাম নগর কমিটির আহ্বায়ক সাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবী জাহিদুল করিম কচি, সদস্য সচিব চিকিৎসক বেলায়েত হোসেন ঢালী, ফোরাম নগর কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আইনজীবী জালাল উদ্দিন পারভেজ, ৯০ এর ছাত্রনেতা এম. মনজুর উদ্দিন, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মাহবুব রানা, আইনজীবী রুনা কাশেম, লায়ন মো. অহিদুল ইসলাম সিকদার, সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম শিল্পী, চিকিৎসক ফেরদৌস আরা সালমা, আইনজীবী শেখ তাপসী তহুরা, আইনজীবী আয়শা আক্তার সানজী, আইনজীবী আসমা খানম, তাসলিমা আহমদ লিমা, নাসিমা আলম, ফোরাম নগর কমিটির (দাপ্তরিক দায়িত্বপ্রাপ্ত) সদস্য সাজ্জাদ হোসেন খাঁন, নারীনেত্রী জহুরা বেগম, চিকিৎসক ওমর ফারুক পারভেজ, চিকিৎসক মঈন উদ্দিন (মঈন), আইনজীবী শাহদাত হোসেন, চিকিৎসক মেহেদী হাসান, প্রচার ও প্রকাশনায় দায়িত্বপ্রাপ্ত মঈনুদ্দিন খান রাজীব, জি.এম কিবরিয়া, আরশে আজিম আরিফ, মনির হোসেন আবির, পারভীন চৌধুরী, রোকসানা মাধু, নাছরিন বাপ্পী, শামসুর নাহার, শরমিন নিপু, কামরুন নাহার লিজা, ঝুমা আকতার, ফাতেমা কাজল, শহীদুল্লাহ আলম রনি, জিন্নাতুন নেছা জিনু, মাহাবুব খালেদ, রিপন মাহমুদ, এফ.এ.এফ রুমী, আহমেদুল ইসলাম সাদ প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই