হালিশহরে পরকিয়া সন্দেহে রাস্তায় স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা

0
.

চট্টগ্রাম মহানগরীর নয়াবাজার বিশ্বরোড এলাকায় প্রকাশ্যে রাস্তায় স্বামীর ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারিয়েছে রেহানা বেগম নামে এক নারী। এ ঘটনায় পুলিশ স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেনকে আটক করেছে।

পরকিয়ার সন্দেহের জের ধরে ঝগড়ার এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীর রেহানাকে ছুরিকাঘাত করে। পরে মঙ্গলবার (২০ জুলাই) রাতে হাসপাতালে রেহানার মৃত্যু হয়।তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে মাদরাসায় পড়ে।

সিএমপির হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন- স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। ছুরিকাঘাতের পরপরই পথচারীরা জাহাঙ্গীরকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করেছে।

পুলিশ জানান, তিন বছর আগে দুবাই গিয়ে একমাস আগে দেশে ফিরে আসে জাহাঙ্গীর। দুবাইয়ে থাকা অবস্থায় স্ত্রী অন্য ব্যক্তির সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে বলে জাহাঙ্গীরের সন্দেহ জাগে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ সৃষ্টি হয়। এসব ঘটনায় রেহেনা ৬ মাস আগে অভিমান করে মেয়েকে নিয়ে অন্যত্র ভাড়া বাসায় চলে যায়।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে তাকে আনতে যায় জাহাঙ্গীর। বাসায় ফেরার সময় রাতে পথে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হলে রেহেনা ফিরে ভাড়া বাসায় ফিরে যেতে চাইলে রাস্তায় ধস্তাথস্তির এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীর রেহেনাকে ছুরিকাঘাত করে। পথচারীরা গুরুতর অবস্থায় তাকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। জাহাঙ্গীরকে পিটুনি দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন স্থানীয়রা’ বলেন ওসি।

নিহত রেহেনা বেগম (৩০) এর বাড়ি নোয়াখালীতে। স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৮) বাগেরহাটের মোংলা থানার কেওড়াতলা গ্রামের মো. আলমগীরের ছেলে। তারা হলিশহর থানার ঈদগাঁ বৌ বাজার আমতল এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন।

কোন মন্তব্য নেই