সিটি গেইটে চাঁদাবাজির অভিযোগে ট্রাফিক কর্মকর্তাকে ধাওয়া করেছে পরিবহন শ্রমিকরা (ভিডিও)

0
.

চট্টগ্রাম মহানগরীর আকবরশাহ থানা এলাকায় চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে ট্রাফিক পুলিশের এক কর্মকর্তাকে ধাওয়া দিয়েছে পরিবহন শ্রমিকরা। এ নিয়ে এলাকায়েউত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থানা পুলিশ এগিয়ে গেলে উত্তেজিত জনতা ওই ট্রাফিক পুলিশের চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে শ্লোগান দিতে থাকে।

আজ সোমবার সকালে নগরীর সিটি গেট এলাকার ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মোস্তফা আল মামুনকে ধাওয়া দেয়ার এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ধারণকরা একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

ভিডিও: 

জানা গেছে, সকাল থেকে সিটি গেইট এলাকায় নিয়মিত দায়িত্ব পালন করছিলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট ফাহিম মৃধা। তিনি দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি নানা অনিয়মে বিভিন্ন গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছিলেন। সাড়ে ৯টার দিকে সেখানে পৌঁছান টিআই মোস্তফা আল মামুন।

তিনি সার্জেন্টের সঙ্গে কথা বলছিলেন। বেলা ১১টার দিকে তাদের পাশে থাকা মাস্কবিহীন একজনকে টিআই মামুন সরে যেতে বলেন। সে সময় ওই ব্যক্তি উত্তেজিত হয়ে কিছু বুঝে ওঠার আগে কয়েকজনের সহযোগিতায় টিআই মামুনকে ধাওয়া দেন। এরপর সড়কে জড়ো হয়ে শ্রমিকরা ‘টিআই মামুনের অত্যাচার, মানি না, মানব না’ স্লোগান দিতে থাকেন। একপর্যায়ে ঘটনাস্থলে আকবর শাহ থানার অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম জানান, টিআই মামুন চালকদের সঙ্গে সবসময় খারাপ ব্যবহার করেন। অযৌক্তিক জরিমানা করেন, মামলা দেন। শ্রমিকরা তাই তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল।

তবে টিআই মামুন দাবি করেন, তার পেছনে অবৈধ লেন ঘিরে চাঁদাবাজি করা কয়েকজন লেগে আছেন। সিটি গেট এলাকায় একটি অবৈধ কার এবং একটি অবৈধ অটোরিকশা লেন বন্ধ করে দেওয়াতে তারা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলেও জানান তিনি।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ সাংবাদিকদের বলেন, ভিডিওটি আমি দেখেছি। এ ব্যাপারে খবর নিয়েছি। তদন্ত করে দেখছি।

পরিবহন শ্রমিকনেতা আনোয়ার বলেন, ‘আমরা ওনাকে (টিআই মামুন) পশ্চিম জোন থেকে সরিয়ে নেয়ার জন্য ৪৮ ঘণ্টা সময় দিয়েছি। তাকে যদি না সরানো হয় তবে কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য আমরা দায়ী থাকবো না।’

কোন মন্তব্য নেই