চট্টগ্রামে অবৈধ সম্পদ অর্জন মামলায় কাস্টমস কর্মকর্তার ৮ বছর কারাদণ্ড

0
.

চট্টগ্রামে অবৈধ সম্পদ অর্জন মামলায় কাস্টমসের সাবেক প্রিন্সিপাল এপ্রাইজার (আমদানি) মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরকে ৮ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই রায়ে তাকে ১ কোটি টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার (১৪ মার্চ) চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতে বিচারপতি মুনসি আবদুল মজিদ এ রায় দেন। আসামির অনুপস্থিতিতেই এ রায় ঘোষণা করা হয়।

দণ্ডিত মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বরিশাল জেলার বানারীপাড়ার থানার বকুপাড়া এলাকার মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে। তিনি নগরের খুলশী থানার দক্ষিণ খুলশী এলাকায় বসবাস করেন।

এ বিষয়ে দুদুকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাভলু বলেন, ‘চট্টগ্রাম কাস্টমসের সাবেক প্রিন্সিপাল এপ্রাইজার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে ৭৩ লাখ ৭২ হাজার ৮৪২ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন মামলা দেয় দুদক। আজ বিজ্ঞ আদালত সে মামলার রায়ে কাস্টমসের ওই সাবেক কর্মকর্তাকে আট বছর কারাদণ্ড ও এক কোটি টাকা জরিমানা দেন। জরিমানা আদায় না করলে আরো দুই বছর কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে আসামিকে।’ তবে আসামীর অনুপস্থিতিতেই এ রায় ঘোষণা করা হয়।

আদালত সূত্রে জানা যায়, দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪ এর ২৭ (১) ধারা অনুযায়ী ৭৩ লাখ ৭২ হাজার ৮৪২ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করায় চট্টগ্রাম কাস্টমসের সাবেক প্রিন্সিপাল এপ্রাইজার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। ২০১০ সালের ৭ অক্টোবর দক প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন নগরের ডবলমুরিং থানায় বাদি হয়ে এ মামলা করেন। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় (সজেকা) চট্টগ্রাম-১ এর উপ-পরিচালক মোহাম্মদ লুৎফুল কবির চন্দন আদালতে ২০১৮ সালের ৬ আগস্ট অভিযোগপত্র দায়ের করেন।

কোন মন্তব্য নেই