রাত পোহালেই বোয়ালখালিতে ভোট যুদ্ধ

0

27mey-1.psdচট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সাত ইউনিয়নের ৬৫ কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম শুক্রবার (২৭ মে) সন্ধ্যার আগেই পৌঁছছে। ইউপি নির্বাচনে ভোট উৎসবে যোগ দিতে নগর থেকে বাড়ি ফিরছে ভোটাররা।

সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ইলিয়াছ কামাল রিসাত।

তিনি জানান, নির্বাচনী ব্যালেট ও ব্যালেট বক্সসহ আনুষাঙ্গিক জিনিস পত্র দায়িত্ব প্রিসাইডিং অফিসারদের বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। তাদের সাথে সাথে আনসার ও পুলিশ সদস্য স্ব স্ব নির্বাচনী কেন্দ্রে চলে গেছে। এছাড়া ২৮ মে নির্বাচনী এলাকায় আচরণবিধি সংক্রান্ত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য শাকপুরা ও সারোয়াতলীতে সুরাইয়া আকতার সুইটি, পোপাদিয়া ও আমুচিয়া মো. লুৎফুর রহমান, চরণদ্বীপ ও শ্রীপুর-খরণদ্বীপে সরকার আবদুল্লাহ আল মামুন বাবু এবং আহলা কড়লডেঙ্গা ইউনিয়নে মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্বে থাকবেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মাহবুবুল আলম।

নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসন পুলিশ আনসারের পাশাপাশি কেন্দ্রীয়ভাবে মনিটরিং ব্যবস্থা, মোবাইল টিম, স্ট্রাইকিং ফোর্স, ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বিজিবি ও র‌্যাব টহল জোরদার থাকবে বলে জানা গেছে।

আজ শনিবার ৭ ইউপির ৬৫টি কেন্দ্রের ২৩০ বুথে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তৎমধ্যে ৪১টি কেন্দ্র অধিক ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। এতে প্রিসাইডিং ৬৫, সহকারী ২৩০ সহকারী প্রিসাইডিং ও ৪৬০জন পোলিং অফিসার ভোট গ্রহণে দায়িত্ব পালন করবেন।

সাত ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ১লক্ষ ৩হাজার ৭৩জন ভোটার ভোটাধিকার প্রদান করবেন। এর মধ্যে সাধারণ সদস্য পদে ১ লক্ষ ২ হাজার ১ শত ৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৮১ হাজার ৮শত জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

চেয়ারম্যান পদে ৩৭জন প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। তৎমধ্যে আওয়ামীলীগের ৭জন, বিএনপি’র ৭জন, ইসলামী ফ্রন্টের ৩জন, জাতীয় পাটি (জাপা)’র ২জন ও স্বতন্ত্র ১৮ জন। শাকপুরায় আবদুল মান্নান মোনাফ (নৌকা), শওকত আলী ( ধানের শীষ), বিকাশ চৌধুরী (লাঙ্গল) স্বতন্ত্র আহমদ হোসেন (মোটর সাইকেল)। সারোয়াতলীতে নুর মোহাম্মদ (ধানের শীষ), বেলাল হোসেন (নৌকা) ও মুহাম্মদ এমদাদুল ইসলাম সিকদার (মোমবাতি)। এসএম জসিম (নৌকা), মেহেদী হাসান সুজন (ধানের শীষ), এসএম মোদাচ্ছের (মোমবাতি), এসএম আমিনুল ইসলাম (টেলিফোন)। চরণদ্বীপে শামশুল আলম (নৌকা), মজিবত উল্লাহ মজু (ধানের শীষ), মাওলানা মুহাম্মদ মহিউদ্দিন (মোমবাতি), স্বতন্ত্র মো.ইউনুচ (মোটর সাইকেল), অলি আহমদ (চশমা), জিএম বাবর চৌধুরী (আনারস), মো. আবুল বশর (অটোরিক্সা), আবু বক্কর চৌধুরী (টেবিল ফ্যান), শফিউল হুদা (টেলিফোন) ও জাহাঙ্গীর আলম (রজনীগন্ধা)।

শ্রীপুর-খরণদ্বীপে মো. মোকারম (নৌকা), মো. ইকবাল(ধানের শীষ), স্বতন্ত্র সমীরণ চৌধুরী (মোটর সাইকেল), নুরুল করিম (টেলিফোন) ও নঈম উদ্দীন (আনারস)। আমুচিয়ায় কাজল দে (নৌকা), মোছলেম মিয়া (ধানের শীষ), মুসলেম উদ্দিন চৌধুরী (লাঙ্গল), স্বতন্ত্র অজিত বিশ্বাস (আনারস) সেলিম নেওয়াজ (ঘোড়া)। আহলা কড়লডেঙ্গায় আবদুল ওয়াদুদ (নৌকা), মো. হামিদুল হক মান্নান (ধানের শীর্ষ), স্বতন্ত্র শামীম আক্তার সিদ্দিকা (টেলিফোন), মোহরম আলী (মোটর সাইকেল), অভিজিৎ চক্রবর্ত্তী (ঘোড়া), রেজাউল করিম (আনারস) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত সদস্য পদে ৩৮জন ও ২৭৫ জন সাধারন সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন