জিয়ার শাহাদাৎ বার্ষিকীর সভায় সাংবাদিক কচি
গণতন্ত্রকে বন্ধি করে দেশকে কারাগারে পরিণত করা হয়েছে

0
Pic
মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেছেন প্রবীণ সাংবাদিক জাহিদুল করীম কচি।

বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্বপ্নের উন্মুক্ত গণতন্ত্র আজ গণভবনের চার দেওয়ালে বন্ধি হয়ে পড়েছে। এদেশের জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত হউক তা বর্তমানে অবৈধপথে ক্ষমতা দখলকারী শাসক গোষ্ঠী কখনো চাই না। গণতন্ত্রকে বন্ধি করে গোটা দেশকে কারাগারে পরিণত করা হয়েছে। আবারো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করতে সে কারাগার ভাঙতে হবে। কেননা প্রতিনিধিত্বশীল ও জবাবদিহিতা মূলক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ছাড়া দেশের চলমান সংকট নিরসন এবং উন্নয়ন অগ্রযাত্রা কখনো সম্ভব নয়।

শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে রোববার আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল বক্তারা এ কথা বলেন।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্যোগে চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক আমার দেশ পত্রিকার  ব্যুরো চীফ  জাহেদুল করিম কচি।

প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক পিপি মহানগর বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক খুলশী থানা বিএনপি’র আহ্বায়ক জনাব এড. আবদুস ছাত্তার, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক নগর ছাত্রনেতা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মো: তোফাজ্জল হোসেন।

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহমুদ আলম পান্না’র সভাপতিত্বে
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এস.এম আজাদ ও আইন বিষয়ক সম্পাদক মো: আবদুল আজিজ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা মোস্তফা কামাল, ডবলমুরিং থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো: ইকবাল হোসেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি এস.এম সেলিম, আবদুর রহমান, মালেক ফারুকী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা মাস্টার শফিকুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন দুলাল, আবদুল আজিজ, জয়নাল আবেদীন, মো: জামশেদ, এম.এস দুলাল, কামাল হোসেন, টিপু সুলতান, এইচ.এম মুরাদ, আজাদ, দিদারুল আলম দিদার, আলী আজগর কাজল, নুরুল কবির পলাশ প্রমুখ।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার যদি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের দুঃসাহস দেখায় এর পরিণতি হবে ভয়াবহ। এই অবৈধ সরকারকে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার জন্য বাধ্য করা হবে। সভা থেকে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক এস.কে খোদা তোতনের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। সভা শেষে শহীদ জিয়ার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এক মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মিলাদ মাহফিল শেষে সকলের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন