ভালোবাসা দিবসে অভিমানে কিশোরীর আত্মহত্যা

0
.

পিরোজপুরে বিশ্ব ভালবাসা দিবসে প্রেমিকের সঙ্গে অভিমান করে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ভালোবাসা দিবসে প্রেমিক বিয়ের প্রসঙ্গ এড়িয়ে যাওয়া ও অন্য বান্ধবীকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার ঘটনা সহ্য করতে পারেনি ওই কিশোরী। ক্ষোভে, অভিমানে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় সে। তার নাম শাহরিণ শাহজাহান ঐশী।

মঙ্গলবার ‘বিশ্ব ভালবাসা দিবস’ দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শাহরিণ শাহজাহান ঐশী বাগেরহাট জেলার মোড়েলগঞ্জ উপজেলার সাত নম্বর হোগলাপাশা ইউনিয়নের মধুরকাঠী গ্রামের বাসিন্দা মো. শাহজাহান সেখের মেয়ে ও পিরোজপুর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী বলে জানা গেছে।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র সাকিব খানের সঙ্গে ঐশীর দেড় বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। ১৪ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে সকাল নয়টার দিকে এক বান্ধবীকে নিয়ে প্রেমিক সাকিব খানের সঙ্গে দেখা করতে ডিসি পার্কে আসে। এখানে ভবিষ্যতে নিজেদের বিয়ে নিয়ে মতবিরোধ হয় দুজনের। দুজনের দেখা সাক্ষাতের পর এরই মাঝে ঐশী খবর পায় সাকিব অন্য এক মেয়েকে ঘুরছে। আর সহ্য হয়নি ঐশীর। ক্ষোভ ও অভিমানে দুপুর দেড়টার দিকে ঐশী হঠাৎ বিষ পান করে।

তাকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কিছুক্ষণ পর সে মারা যায়। কি কারণে ঐশী বিষ পান করে তা এখনো জানা যায়নি। রাতে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার লাশ হাসপাতালে রয়েছে।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান বিশ্বাস এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, একটি মেয়ে বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে। বর্তমানে মরদেহ হাসপাতালে রয়েছে।

অপর এক প্রশ্নে তিনি বলেন, শুনেছি আমাদের এক সাব ইন্সপেক্টর (ডিএসবি) নাসির উদ্দিনের ছেলে সাকিবের সাথে নাকি ওই মেয়েটির সম্পর্ক ছিল।

 বুধবার এর ময়না তদন্ত হবে। এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, মেয়েটির স্বজনরা (পিতা) চাইছে ময়নাতদন্ত ছাড়া লাশ নেয়ার জন্য। তবে একটি একটি স্পর্শকাতর বিষয় তাই পোস্টমর্টেম করতে হবে।

কোন মন্তব্য নেই