চট্টগ্রামে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট স্থাপনে আগ্রহী ভারতীয় ব্যবসায়ীরা

0
.

চট্টগ্রামে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট স্থাপন ও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধিসহ যৌথ বিনিয়োগে ঐকমত্য প্রকাশ করেছেন ভারতের কলকাতাস্থ বেঙ্গল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র এর প্রতিনিধি দল। ইঞ্জিনিয়ারিং ও আইটি সেক্টরে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করার আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র নেতৃবৃন্দের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তারা এ ঐক্যমত প্রকাশ করেন।

চিটাগাং চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নুরুন নেওয়াজ সেলিম’র সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেনম ভারতীয় প্রতিনিধিদল নেতা আর. এন. লাহিরী (জ. ঘ. খধযরৎর) চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার সোমনাথ হালদার, চিটাগাং চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, এইচআরসি’র সিনিয়র পরিচালক কাজী রুকুনউদ্দীন আহমেদ, ব্যবসায়ী নেতা তাহের সোবহান, বাফা’র সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিরুল ইসলাম চৌধুরী, বিশিষ্ট চিকিৎসক ড. অহিদুল আলম, বিকেএমই’র সাবেক পরিচালক শওকত ওসমান, রিহ্যাব’র ইঞ্জিনিয়ার ইফতেখার, মাস্টার আবুল কাশেম, ড. হাসান মাহমুদ প্রমুখ।

সভায় চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নুরুন নেওয়াজ সেলিম বলেন-২০১৫-১৬ অর্থবছরে ভারতে বাংলাদেশের রপ্তানি ৬৮৯.৬২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং আমদানি ৫৪৫২.৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। তিনি উভয় দেশের বাণিজ্য বৃদ্ধিতে স্থল বন্দরসহ অবকাঠামো উন্নয়ন, অশুল্ক বাধা দূরীকরণ বাণিজ্য সুবিধা নিশ্চিতকরণের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

প্রতিনিধিদল নেতা আর. এন. লাহিরী মনে করেন প্রতিবেশী দু’দেশের মধ্যে পর্যটন, ইঞ্জিনিয়ারিং, স্বাস্থ্য, টেকনোলজিসহ অনেক সেক্টরেই পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে উপকৃত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। তিনি এসব সুবিধা কাজে লাগাতে নিয়মিত বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময়ের আহবান জানান।

ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার সোমনাথ হালদার খাদ্য, ফ্রুটস, ফিস প্রসেসিং, সিমেন্ট ইত্যাদি সেক্টরে যৌথ বিনিয়োগের মাধ্যমে বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাস করা সম্ভব বলে মনে করেন এবং পণ্য সমাহার বহুমূখীকরণের মাধ্যমে ভারতের বিশাল বাজারে বাংলাদেশী রপ্তানি বৃদ্ধির পরামর্শ দেন।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন