আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের স্মরন সভায় মহিউদ্দিন
মনজুর আলম যোগ্যতার সাথে মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছিলেন

0
????????????????????????????????????
মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের স্মরন সভায় বক্তব্য রাখছেন মহিউদ্দিন চৌধুরী।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টর সমাজ সেবা ও রাজনীতিতে এক বিরল ব্যক্তিত্ব। তিনি কেয়ামত পর্যন্ত তাঁর সৎ কর্মের মাধ্যমে মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবেন। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী রাজনীতির জন্য তিনি ছিলেন একজন যোদ্ধা । তাঁর রেখে যাওয়া সৎ ও আদর্শবান সন্তানেরা আজ সমাজে সততার আলো ছড়াচ্ছেন।

শুক্রবার বিকালে মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মোস্তফা হাকিম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের উদ্যোগে আয়োজিত স্মরন সভা ও ইফতার মাহফিলে ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টর চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী রাজনীতিকে শক্তিশালি করতে ঘরে ঘরে গিয়ে কর্মী সংগ্রহ করেছেন। রজননৈতিক জীবনে তিনি ছিলেন এক নির্লোভ নিবেদিত প্রাণ। সংগঠন প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে তিনি কখনো পাওয়া আশা করেননি। ১৯৫৪ সাল থেকেই তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতিকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মনে প্রাণে ধারন করেছিলেন।

সাবেক মেয়র ও মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মো. মনজুর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, তিনি ছিলেন একজন আদর্শবান পিতা যিনি সমাজে রেখে গেছেন তাঁর সৎ সন্তানদের। শুধু রাজনীতি বা সমাজ সেবা নয় যোগ্য সন্তান তৈরীর ক্ষেত্রেও তিনি একজন সফল এবং সার্থক পিতা।

তিনি বলেন,মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের সহধর্মিনী মোস্তফা খাতুন ছিলেন একজন আদর্শবান এবং সমাজ হিতৈশি নারী। তাঁর অনুপ্রেরনাতেই আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টর সমাজ সেবায় আত্মনিয়োগ করেছিলেন ।  তিনি রাজনীতি করেছেন মানুষের কল্যাণে। প্রবীণ এ আওয়ামীলীগ নেতা আরো বলেন, আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের সুযোগ্য সন্তানরা আজ সমাজে সর্বদিকে প্রতিষ্ঠিত। রাজনীতি সমাজ সেবা সব দিকেই তাঁদের আজ সমানতালে পদচারনা। তাঁরা তাদের পিতার আদর্শকে ধারন করে সমাজের বঞ্চিত অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন । তিনি বলেন মোস্তফা হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন তারই একটি অন্যতম উাহরন। এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আবদুল হাকিমের সমাজ সেবার যে স্বপ্ন ছিল তা পূরন হচ্ছে আজ। তাঁর সন্তানেরা এ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সমাজের দুস্থ অসহায় মাুনষের মৌলিক পাঁচটি চাহিদা পূরনে কাজ করছে।

মহিউদ্দিন চৌধুরী আরো বলেন, আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের অন্যতম সন্তান মো.মনজুর আলম যোগ্যতার সাথে মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে কোন ধরনের অনিয়মের অভিযোগ কেউ করতে পারেনি। তিনি পিতার সৎ আদর্শকে ধারন করেছিলেন বলেই তা সম্ভব হয়েছে। মনজুর আলমের মত সন্তানের জন্যই আবদুল হাকিম কন্টাক্টররা যুগে যুগে মানুষের হৃদয়ে অমর হয়ে থাকবেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সীতাকুন্ডের সাংসদ আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টরের নাতী মো. দিদারুল আলম এমপি বলেন, আমার দাদা ছিলেন একজন সাদা মনের মানুষ। তিনি সব সময় মানব সেবাকে প্রাধান্য দিতেন। তিনি বলতেন সমাজ সেবাই আসল রাজনীতি। আমরা তাঁর আদর্শকে অনুসরন করে মোস্তফা হাকিম ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সমাজের বঞ্চিত মানুষের জন্য কাজ করছি।

সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবদুর রহিমের সঞ্চলনায় সভাপতির বক্তব্যে সাবেক মেয়র মনজুর আলম বলেন, তাঁর পিতা মরহুম আবদুল হাকিম কন্ট্রাক্টর এবং মাতা মোস্তফা খাতুন ছিলেন সর্বদা পর হিতৈশি। সমাজের অসহায় মানুষের উপকার করেই তাঁরা তৃপ্ত হতেন। আমরা তাঁদের সে মনের অতৃপ্ত আশাকে আজ সমাজের বঞ্চিত মানুষের সেবা করেই পূর্ণ করছি।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, তাহের গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ তাহের, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র নেছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, কাউন্সিলর জহুর আলম জসিম, সীতাকুন্ড উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ইছহাক,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলউদ্দিন সাবেরী, এম এস আলম,আকবর শাহ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান আহমদ চৌধুরী চেয়ারম্যান, মোস্তফা হাকিম গ্রুপের পরিচালক, মো. শাহীন আলম, মো. সরোয়ার আলম,মো, ফারুক আজম, মো, সাইফুল আলম, মো. শাহিদুল আলম, মো. কাউসার রাব্বি, ডা. মো. তুহিন,রবিউল আলম রিজভী,মোস্তফা হাকিম গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (এইচআর এন্ড লিগ্যাল) আলী আহমেদ,মোস্তফা হাকিম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রিন্সিপ্যাল মো. আলমগীর,

স্মরন সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মোস্তফা হাকিম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. বাদশা আলম, আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল্লাহ আল বাকের ভূইয়া, মহিউদ্দিন বাবলু, ফরিদ মাহবুব, রেহান উদ্দিন রেহান, জাহেদ চৌধুরী ফারুক, জসিম উদ্দিন, আব্বাস রশিদ, কাজী আলতাফ হোসেন, আজিজুর রহমান, নাজমুল হক রুমী, সরোয়ার মোর্শেদ, জুলফিকার শাওন, মনির আহমদ  প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন