আমেরিকার সমকামী নাইটক্লাবে হামলা অন্যায় অমানবিক : জামায়াত

0
ভভভভ
ফাইল ছবি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের অরল্যান্ডো শহরের নাইট ক্লাবে সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ৫০ জন লোক নিহত ও অর্ধশতাধিক লোক আহত হওয়ার ঘটনাকে ‘নৃশংস’ বলে এর নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম. আলম স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ।

us_orlando-shootin
আমেরিকার নাইট ক্লাবে হামলার পর পুলিশ এলাকাটি ঘিরে ফেলে। ফাইল ছবি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের অরল্যান্ডো শহরের নাইট ক্লাবে সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ৫০ জন লোক নিহত ও অর্ধশতাধিক লোক আহত হওয়ার ঘটনা অন্যায় ও অমানবিক।’

‘ফ্লোরিডার এ নৃশংস ঘটনায় আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরকার, মার্কিন জনগণ ও নিহতদের পরিবার এবং আহতদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি ও আহতদের আরোগ্য কামনা করছি।’

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির আরও বলেন, ‘মানবতার দৃষ্টিকোণ থেকে এ ধরনের কাপুরুষোচিত হামলা অগ্রহণযোগ্য। আমরা আশা করি, মার্কিন সরকার ও জনগণ শীঘ্রই এ বিরাট ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবেন।’

গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় রাত ২টার দিকে পালস ক্লাব নামে পরিচিত ওই নাইটক্লাবে হামলা চালায় ওমর মতিন (২৯) নামের এক বন্দুকধারী। যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ইতিহাসে এটাই এ ধরনের সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।

ঘটনার পরপরই মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআইয়ের কর্মকর্তা রোনাল্ড হপার বলেন, ‘আমরা আভাস পাচ্ছি যে লোকটির উগ্রপন্থি ইসলামি আদর্শের দিকে ঝোঁক ছিল। তবে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

সমকামীদের নাইটক্লাবে হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। হামলাকারী বন্দুকধারী এক পুলিশকে ফোন করে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী বা আইএসের প্রতি নিজের আনুগত্যের কথা স্বীকার করেছিল বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই।

হামলাকারী ওমর মতিনের জন্ম যুক্তরাষ্ট্রে হলেও তার বাবা-মা আফগান। শনিবার মধ্যরাতে ফ্লোরিডার অরল্যান্ডো শহরের ‘পালস’ নামের নাইটক্লাবটিতে ঢুকে গুলি চালায় মতিন। তাতে ৫০ জন নিহত হয় সেখানে। আহত হয় আরও ৫৩ জন।

bbC-NEWS-1
ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের অরল্যান্ডো শহরের নাইট ক্লাবে সন্ত্রাসী হামলা। ফাইল ছবি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একে ‘সন্ত্রাস ও বিদ্বেষের কাজ’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘বন্দুকধারীর কাছে একটি হ্যান্ডগান এবং একটি অ্যাসল্ট রাইফেল ছিল। এতেই প্রমাণ হয় কত সহজেই বন্দুক ব্যবহার করে এখানে স্কুল, আবাসিক এলাকা বা নাইটক্লাবে হামলা করা যায়।’

এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প। হামলার জন্য মুসলিম মৌলবাদীদের দায়ী না করায় প্রেসিডেন্ট ওবামার পদত্যাগও দাবি করেছেন ট্রাম্প।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও এ হামলায় নিন্দা ও নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন