হাছান মাহমুদ একটা পলিটিক্যাল বেয়াদবঃ নজরুল ইসলাম খান

2
সৌদি আরবের মদিনায় বেলাল মসজিদের পাশে ইফতার ও আলোচনা সভায় রাখছেন নজরুল ইসলাম খান।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদকে ‘পলিটিক্যাল বেয়াদব’ উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘আমাদের দেশে এখন পলিটিক্যাল বেয়াদব হয়ে গেছে, আগে শোনা যেত না এসব শব্দ। এখন কিছু রাজনৈতিক বেয়াদব হয়ে গেছে যার মধ্যে অন্যতম হলো হাছান মাহমুদ বলে একজন আওয়ামী লীগের নেতা।’

তিনি গতকাল রবিবার সৌদি আরবের মদিনায় বেলাল মসজিদের পাশে আয়োজিত ইফতার ও আলোচনা সভায় বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধসে আহত নিহতদের পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে যাবার পথে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ী বহরে হামলার ঘটনাকে ড. হাছান মাহমুদ নাটক বলে অভিহিত করার নজরুল ইসলাম খান এ মন্তব্য করেন।

নজরুল ইসলাম খান আরো বলেন, ‘এরা রাজনীতিবিদ না, রাজনীতির ন্যূনতম সংস্কৃতি এদের মধ্যে নাই। বিদেশে যেয়ে অনেকে টাকা-পয়সা থাকলে লেখাপড়া করে ডিগ্রি নিয়ে আসা যায়। ওনারও (হাছান মাহমুদ) ওই রকম ডিগ্রী টিগ্রি আছে। কিন্তু ভদ্রলোক যে হয়নি এটা বোঝা যাচ্ছে, ভালো মানুষ যে হয়নি এটা বোঝা যাচ্ছে। এখন এ ধরনের লোকরা যারা রাজনীতিবিদ হয়ে বা নিজেদেরকে রাজনীতিবিদ বলে পরিচয় দেয়, অথচ রাজনীতির বিষয়ে, রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সম্পর্কে এ রকম মন্তব্য করে এরা রাজনৈতিক বেয়াদব ছাড়া আর কিছু নয়।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘পাহাড়ধসে মানুষ কষ্ট করছে, তাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে যাচ্ছে, সাহায্য করতে যাচ্ছে এটা কোনো রাজনৈতিক প্রোগ্রাম না। কিন্তু এমন এক সরকারের অধীনে আমরা, যে আপনার প্রোগ্রাম কী সেটা ব্যাপার না, বড় কথা হলো, তাদের যেমন স্বভাব তেমন আচরণ।’

গাড়িবহরে হামলার পর হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেছিলেন  ‘বিএনপি নেতাদের ওপর হামলার ঘটনা রহস্যজনক। কারণ, গাড়িতে ধাক্কা লাগার পর রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশ বিএনপি নেতাদের রাঙামাটি পৌঁছে দিতে সহায়তার আশ্বাস দেয়। তারপরও তাঁরা সেই সহায়তা নেয়নি। তাহলে তাঁরা কি আসলেই রাঙামাটি যেতে চাচ্ছিলেন, নাকি ইস্যু তৈরি করতে চাচ্ছিলেন সে রহস্য থেকেই যাচ্ছে।’

এ প্রসঙ্গে বক্তব্য দিতে গিয়ে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমি দেখলাম ফেসবুকে সে (হাছান মাহমুদ) বলেছে, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবদের গাড়ির বহর থেকে কাকে ধাক্কা দিছে সেই জন্য কিছু হয়ে থাকতে পারে, এমন বিতর্কিত না। বিএনপির সেক্রেটারি জেনারেল, একজন সাবেক মন্ত্রী, স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ আরো নেতৃবৃন্দ, তাঁদেরকে একেবারে প্রস্তুতি নিয়ে, বৃষ্টি হচ্ছিল রাঙ্গুনিয়া থানার হেডকোয়ার্টার…সেখানে দল বেঁধে লোক এসে গাড়িতে হামলা করেছে।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি জেনারেল নাকি বলেছে, এটাতে তাদের যদি কোনো লোক জড়িত থাকে তাহলে তাদের বিচার করা হবে। ভালো, যদি তারা বিচার করে আমরা খুশি হব।’

সরকার প্রসঙ্গে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘কোনো রকমের রাজনৈতিক আচরণ এই সরকারের মধ্যে নাই, অরাজনৈতিক আচরণ আছে। কোনো রকমের মানবিক মূল্যবোধ এই সরকার মানে না। এই সরকার একটা অমানবিক সরকার, এমন তার নিপীড়নের পরিমাণ বেড়ে, এই সরকারকে দানবিক সরকারও বলা যেতে পারে।’

এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মদিনা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল মোমিন। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন পিয়ার আহমেদ পিয়ার, ভিপি বাবুল ও সালাউদ্দিন সোহেল। ইফতার ও আলোচনা সভায় বিপুলসংখ্যক মদিনা বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সুত্রঃ এনটিভি অনলাইন

 

Advertisements