৩৬ কোটি টাকার চেক প্রতারণার মামলা
আসলাম চৌধুরীকে কারাগারে প্রেরণ

0
Aslam-Chy-1
বিএনপি নেতা লায়ন আসলাম চৌধুরী।

চেক প্রতারণা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

সোমবার পুলিশ তাকে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আব্দুল কাদের এর আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আদালতের বেঞ্চ সহকারী কফিল উদ্দিন জানান, পূবালী ব্যাংকের ৩৬ কোটি ৮ লাখ টাকার একটি চেক প্রতারণার মামলায় আদালত আসলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন আদালত। এর আগে রবিবার রাতে আসলাম চৌধুরীকে পুলিশ ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম নিয়ে আসেন।

ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রতিনিধির সঙ্গে গোপন বৈঠকে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ঢাকায় গ্রেফতার হওয়ার এক মাস ৪ দিনের মাথায় রবিবার রাতে তাকে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে আনা হয়।

আদালত সূত্রে জানাগেছে, সীতাকুণ্ডে ফৌজদারহাটের এসোসিয়েট নামে একটি প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে আসলাম চৌধুরী বিভিন্ন সময়ে পূবালী ব্যাংক থেকে মোট ৩৬ কোটি ৮ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। ঋণ পরিশোধের জন্য যমুনা ব্যাংকের চেক দিলেও অপর্যাপ্ত তহবিলের কারণে তা ব্যাংক কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়।

আসলাম
আসলাম চৌধুরীকে কারাগারে নিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ। ফাইল ছবি।

ফলে কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে মোট ৩৬ কোটি ৮ লাখ টাকার চেক প্রতারণার অভিযোগে ২০১৩ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে ৮টি মামলা দায়ের করেন। পূবালী ব্যাংকের সিডিএ কর্পোরেট শাখার সহকারী মহাব্যবস্থাপক এস এম ইয়াহিয়া বাদি হয়ে এসব মামলা করেন।

এর মধ্যে ২০১৪ সালের ২ জানুয়ারি চট্টগ্রাম মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতে ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকার চেক প্রতারণার মামলাটি দায়ের করা হয়। এর আগে ২০১৩ সালের ২ ডিসেম্বর ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকার চেক প্রতারণার আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়।

এছাড়া ৩ কোটি ৭৮ লাখ টাকা করে চেক প্রতারণার অভিযোগে আরও ৬টি মামলা দায়ের করা হয়। এর মধ্যে ২০১৫ সালের ১ এপ্রিল দুইটি, ২২ মার্চ দুইটি ও ১৮ মার্চ দুইটি মামলা দায়ের করে পূবালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

এসব মামলায় আসলাম চৗধুরীকে হাজির করার জন্য পরোয়ানা জারি করেন আদালত। সোমবার মহানগর হাকিম আব্দুল কাদেরের আদালতে আসলাম চৌধুরীকে হাজির করা হলে আদালত তাকে গ্রেফতার দেখানোর অনুমতি দিয়ে কারাগারে পাঠান। তবে আসলাম চৌধুরীর পক্ষে কেউ আদালতে জামিনের আবেদন করেননি।

উল্লেখ্য, বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরী সম্প্রতি ভারতে গিয়ে বিশ্বব্যাপী ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে একাধিক বৈঠক এবং বাংলাদেশ সরকারকে উচ্ছেদ করতে গোপন ষড়যন্ত্র করছেন বলে দেশের বিভিন্ন সংবাদপত্রে খবর প্রকাশিত হয়।

ইসরায়েলের প্রভাবশালী নেতা মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলাম চৌধুরীর একাধিক ছবি এবং ইসরায়েলি একটি অনলাইনে এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা তৎপর হয়ে উঠে।

পরে গত ১৫ মে ঢাকার কুড়িল এলাকা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। ইতোমধ্যে তাকে দফায় দফায় রিমান্ড নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও সরকার উৎখাতের কোন ষড়যন্ত্রের তথ্য উৎঘাটন করতে পারেনি বলে জানান বিএনপি নেতারা।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন