‘বড় ধরনের নাশকতার জন্য উত্তরার খালে অস্ত্র মজুদ করা হয়েছিল’

0
DMP1
প্রেস ব্রিফিং এ বক্তব্য দিচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

বড় ধরনের নাশকতার জন্য উত্তরায় খালে অস্ত্র ও গুলি মজুদ করা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

সোমবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ দাবি করেন তিনি।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, রাজধানীর উত্তরায় খালে উদ্ধার হওয়া অস্ত্র ও গুলি কোনো সাধারণ সন্ত্রাসীদের নয়। বড় ধরনের নাশকতার জন্য এগুলো মজুদ করা হয়েছিল। অস্ত্র উদ্ধার করে সেই পরিকল্পনা নস্যাৎ করতে পেরেছে পুলিশ।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, যারা দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়, জ্বালাও-পোড়াও করে, তারাই এ অস্ত্র রেখেছিল। এগুলো উদ্ধার না হলে দেশে বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারতো।

তিনি বলেন, এটা কোনো সাধারণ সন্ত্রাসীদের কাজ নয়। ২০১৫ সালে যারা নারী-পুরুষকে পুড়িয়ে মেরেছে, যারা দেশের চলমান উন্নয়ন ও বিচারপ্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত করতে চায়, এটা তাদের কাজ বলে প্রাথমিকভাবে বলা যায়।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, অস্ত্রগুলো হয় সম্প্রতি রাজধানীর বাইরে থেকে ঢাকায় এসেছে, নয়তো অনেক দিন থেকেই এগুলো ঢাকার ভেতরে মজুত করে রাখা হয়েছিল।

উত্তরার ১৬ নম্বর সেক্টরের বৌদ্ধমন্দিরের পাশের খাল থেকে গত শনি ও গতকাল রোববার বিভিন্ন ধরনের বিপুল পরিমাণ অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ বলছে, খাল থেকে দুদিনে ৯৭টি পিস্তল, ৪৯৪টি ম্যাগাজিন ও ১ হাজার ৬০টি গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশের ভাষ্য, নম্বরবিহীন একটি কালো পাজেরো জিপে করে আট ব্যাগ অস্ত্র ও গুলি শনিবার বিকেলে তুরাগ থানাধীন ওই খালে ফেলা হয়। তবে গতকাল পর্যন্ত গাড়িটিকে ধরতে পারেনি পুলিশ।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন