চট্টগ্রামে মেকার স্পেস উদ্বোধনে চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স জোল রাইফম্যান
সাড়ে ছয় হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যয়ন করছে

0
.

চট্টগ্রামের জামালখানস্থ চিটাগং ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির আমেরিকান কর্নারে ‘দি মেকার স্পেস’ উদ্বোধন করা হয়েছে।

আজ বুধবার বিকালে কেন্দ্রটি উদ্বোধন করতে গিয়ে ঢাকাস্থ আমেরিকান দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স জোল রাইফম্যান আমেরিকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে উল্লেখ করে বলেন, আগের বছরের তুলনায় গত বছর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৯ শতাংশ বেড়েছে। সব মিলিয়ে বর্তমানে সাড়ে ছয় হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থী বর্তামানে যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যয়ন করছে। আমেরিকায় গ্র্যাজুয়েট পর্যায়ে অধ্যয়নরত বিদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১তম বলে তিনি উল্লেখ করেন ।

আমেরিকান কর্নারে ‘দি মেকার স্পেস’ উদ্বোধন করে জোল রাইফম্যান আরো বলেন, এটি এমন একটি স্থান, যেখানে তরুণ শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত চর্চার মাধ্যমে তাদের সৃজনশীল ধারনাগুলোর উত্তর খোঁজার চেষ্টা করবেন এবং সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি নতুন কিছু করার উপায় খুঁজে বের করবেন। এই কেন্দ্রটিতে রয়েছে, মাইন্ড স্টর্ম ইভি থ্রি লেগো সেট, মেকি মেকি সেট ও মেকারবট থ্রিডি প্রিন্টারের মত আধুনিক প্রযুক্তি যার সাহায্যে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের পরিধি বৃদ্ধি বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে। চট্টগ্রামহসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে এ পর্যন্ত তিনটি মেকার স্পেস চালু করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

.

তরুণ শিক্ষার্থীদেরকে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশল ও গণিত শিক্ষা বিষয়ে আগ্রহী করে তুলতে স্থাপিত কেন্দ্রটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন আমেরিকান সেন্টারের পরিচালক রেক্স মসার ও চিটাগং ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে নগরীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্র-ছাত্রীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা আমেরিকান কর্ণারের পরিচালক রেক্স মোজারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. মাহফুজুল হক। তিনি বলেন, থ্রি-ডি রোবোটিক প্রিন্টার ‘মেকার স্পেস’ এখানে উদ্বোধন করায় আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা লাভবান হবেন। এতে আমরা খুবই খুশি।

এর আগে সকালে যুক্তরাষ্ট্রের চার্জ দ্যা এফেয়ার্স জোল রাইফম্যানস চট্টগ্রাম চেম্বারে ব্যবসায়ীদের সাথে এক গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নেন। চট্টগ্রাম চেম্বার এবং আমেরিকান চেম্বারের যৌথ আয়োজনে ‘ইউএস-বাংলাদেশ বাইল্যাটার‌্যাল ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট রিলেশন্স’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম চেম্বার প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম বলেন, চীনের পরে বাংলাদেশ তৈরী পোশাক রপ্তানিতে এখন এগিয়ে। চট্টগ্রাম বিনিয়োগের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

আমেরিকান দূতাবাস সুত্রে জানাগেছে, জোল রাইফম্যান দুই দিনের সফরে আজ বুধবার চট্টগ্রামে আসেন। চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স হিসেবে রাজধানী ঢাকার বাইরে এটিই তার প্রথম সফর। আমেরিকান কর্নারে মেকার স্পেস উদ্বোধন ছাড়াও চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’র পরিচালকদের সাথে নগরীর ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে মতবিনিময়ে মিলিত হন।

মতবিনিময়ে চট্টগ্রামের সমস্যা ও সম্ভাবনা এবং বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যেকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের বিভিন্ন ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনা হয়। সফরের দ্বিতীয় দিনে বৃহস্পতিবার মার্কিন এই কূটনীতিবিদ চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের সাথে বৈঠক ছাড়াও নগরীর একটি গার্মেন্টস কারখানা পরিদর্শন করবেন বলে আমেরিকান দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন