দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই মারা গেলেন টেলিভিশন সাংবাদিক আলী হোসেন

0
24531
দুর্গম পাহাড়ে কাজ করতে গিয়ে ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান সাংবাদিক আলী হোসেন রিপন।

অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন বেসরকারি টিভি চ্যানেল ‌‘একাত্তর টিভি’র ক্যামেরাপারসন আলী হোসেন রিপন। বুধবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে ঢাকা পি.জি হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

পাহাড়ে খাদ্য সংকট নিয়ে রিপোর্ট করতে গিয়ে ম্যালেরিয়া আক্রান্ত চিত্রগ্রাহক আলি হোসেন রিপন মারা গেছেন বলে জানান তার সহকর্মীরা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৩৩ বছর।

সম্প্রতি পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের দুর্গম পাহাড়ী এলাকা থানচিতে সেরিব্রাল ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে পড়েন ৭১ টেলিভিশনের পরিবেশ বিষয়ক সিনিয়র রিপোর্টার হোসাইন সোহেল এবং ক্যামেরাম্যান আলী হোসেন। সেখান থেকে ফিরে এসে দু’জনেই ম্যালেরিয়া জ্বরে আক্রান্ত হন।

এর মধ্যে আলী হোসেন রিপনের শারীরিক অবস্থা বেশি সংকটাপন্ন হলে তাকে বুধবার সন্ধ্যায় পি.জি হাসপাতালের আইসিইউ’তে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত বারোটার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়।

পরে ঢাকায় ফিরে দুজই অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

এরই মাঝে বুধবার রাতে ক্যামেরাপারসন আলী হোসেন মারা যান বলে তার ঘনিষ্ট্য সুত্র গুলো নিশ্চিত করেছেন।

Screenshot_3
সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম মিঠুর ফেসবুক ওয়ালে দেয়া মৃত্যুর খবর।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের রিপোর্টার আমিনুল ইসলাম মিঠু তার ফেইজবুক পেইজে লিখেন- দু:খজনক সংবাদ- বান্দরবানের দুর্গম পাহাড়ী এলাকায় পেশাগত কাজে গিয়ে হওয়া ৭১ টেলিভিশনের চিত্রগ্রাহক আলি হোসেন রিপন অাজ রাত ১২ টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে……..রাজিউন)। রিপনের অকাল মৃত্যুতে গভির শোক ও বিদেহী আত্মার মাগফেরাৎ কামনা করছ। পরিবেশের জন্য রিপনের এই ত্যাগে মারাত্মক ব্যথিত করেছে আমাদের। এছাড়া ৭১ টেলিভিশনের পরিবেশ বিষয়ক সাংবাদিক হুসাইন সোহেল ভাইও একই রোগে আক্রান্ত। তিনি বর্তমানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। সকলে সোহেল ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন প্লিজ…।

আলী হোসেন রিপন ১৯৮৩ সালের ১ আগষ্ট ঢাকার কেরানীগঞ্জের হানিফ বেপারি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা নাসির উদ্দীন ও মা শামসুন্নাহারের চার সন্তানের মধ্যে তিনি তৃতীয়।

চার ভাইয়ের মধ্যে তৃতীয় ছিলে তিনি। সম্প্রতি তাঁর বিয়েও ঠিক হয়। ঈদের পরই বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিলো রিপনের।

 তিনি ১৯৯৯ সালে আতিপাচদানা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি ও ২০০১ সালে নয়াবাজার ডিগ্রি কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি সম্পন্ন করেন।

২০১১ সালের ৫ মে তিনি বেসরকারি টিভি চ্যানেল ‘একাত্তর টিভি’তে ক্যামেরাপারসন হিসেবে যোগ দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। বর্তমানে একই প্রতিষ্ঠানে তিনি ‘নিউজ ও প্রোগ্রাম’ উভয়ই ক্যামেরায় ধারণ করেন। তার আকাল মৃত্যুতে একাত্তর টেলিভিশন পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

একাত্তর টিভি সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে শ্রদ্ধা জানাতে রিপনের মরদেহ কর্মস্থল একাত্তর টিভি’র কার্যালয়ে নেয়া হবে। সেখানে জানাজা শেষে কেরানীগঞ্জে লাশ দাফনের কথা রয়েছে।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন