আহলে হাদীসের মসজিদ মাদ্রাসা উচ্ছেদের দাবি-জান্নাতুল ইসলাম
পতেঙ্গায় কোরআন অবমাননার প্রতিবাদে হাজারো জনতার বিক্ষোভ

2
.

নগরীর উত্তর পতেঙ্গা স্টিল মিল বাজার (মুন বেকারী গলি) আহলে হাদীস যুব সংঘের নামে একটি মসজিদ থেকে পরিত্যক্ত পবিত্র কোরআন শরীফ অবমাননার প্রতিবাদে হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনাতা ফুঁসে উঠেছেন।

আজ শুক্রবার ২০অক্টোবর বাদ জুমার পর পতেঙ্গা ইপিজেড এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পতেঙ্গা থানার কাছে আলী প্লাজা প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করে জাতীয় উলামা পরিষদ ও সচেতন তৌহিদী মুসলিম জনতা। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন কেন্দ্রিয় সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি মাওঃ জান্নাতুল ইসলাম বলেন, পবিত্র কোরআনকে অবমাননাকারীদের কোন মুসলিম মেনে নিবে না আর ইসলাম ধর্মকে যারা অপব্যাখ্যা দিবেন তাদের কঠোর শাস্তির বিধান করতে প্রশাসনকে স্বোচ্চার হতে অনুরোধ জানান।

জান্নাত আরো বলেন, আহলে হাদীসের নামে ধর্মীয় উগ্রপ্রন্থী সংগঠন কে এই দেশে কোন মসজিদ-মাদ্রাসা পরিচালনা করতে দেওয়া উচিত নই বলে দাবি তুলেন। তারা বাংলাভাই,আব্দুর রহমান সহ হলিহাটিজমে হামলরা নেপথ্য অনুসারী। এই জঘন্য ধর্ম ব্যবসায়ীদের মসজিদ-মাদ্রাসা উচ্ছেদ করে কোরআন সুন্নী আকিদা ও মাজহাব অনুসারীদের দিয়ে মসজিদ পরিচালনার দাবি দেন।আর অভিযুক্ত মসজিদ টিকে আজ থেকে হোসেন আহম্মদ পাড়া কেন্দ্রিয় জামে মসজিদ কমিটির নিদের্শে পরিচালিত করার জোর দাবি করেন।

জাতীয় উলামা পরিষদ পতেঙ্গা থানা কমিটির সভাপতি মাওঃ মোঃ হারুনুর আজিজীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন উলামা পরিষদ পতেঙ্গার সাঃ সম্পাদক হাফেজ রুহুল্লাহ, ইসলামী আন্দোলন কেন্দ্রিয় সদস্য ও পতেঙ্গা থানার সভাপতি আলহাজ লোকমান সওদাগর, রশিদিয়া মসজিদের পরিচালক মাওঃ শাহ মোঃ এমদাদ উল্লাহ, পতেঙ্গা থানা আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ ফরিদুল আলম, ইসলামী আন্দোলন ইপিজেডের সভাপতি ওদারুস সালাম জামে মসজিদের খতিব মাওঃ জিয়াউল হক নোমানী, সচেতন তৌহিদী মুসলিম জনতার সদস্য মোঃ ইউসুপ, মাওঃ মোৎ তৈয়ব আলী, হোসেন আহম্মদ পাড়া কেন্দ্রিয় জামে মসজিদদের খতিব মাওঃ মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ প্রমুখ।

.

নেতৃবৃন্দরা বলেন, সিইপিজেডের প্যাসেফিক জিন্সের কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান (মিজান) আহলে হাদীসের নামে ধর্মীয় উগ্রপ্রন্থী সংগঠনকে বিদেশীদের নিকট অনুদান উৎসাহ দেখিয়ে এবং নিরীহ নারী-পুরুষ শ্রমিককে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে উগ্র ধর্মমতবাদ সৃষ্টির অভিযোগ তুলেন। অচিরেই এই ভন্ড নেতাকে আটকের দাবি জানান। পরে বিক্ষোভ মিছিল সভাস্থ থেকে শুরু হয়ে সিমেন্ট ক্রসিং মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

এদিকে পবিত্র কোরআন শরীফ অবমাননার প্রতিবাদে হালিশহর-পতেঙ্গা সুন্নী পরিষদের উদ্যোগে শুক্রবার বাদে জুমার পর অপর একটি বিক্ষোভ মিছিল ইপিজেডের সিমেন্ট ক্রসিং মসজিদের সামনে থেকে শুরু করে পতেঙ্গা কাটগড় এবং বন্দরের ২নং মাইলের মাথা, বন্দরটিলা বাজার হয়ে কাজীরগলি সুলতান আহম্মদ জামে মসজিদের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

এসময় বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন কমিটির মহাসচিব-হাজী ফরিদুল আলম, মাওলানা মোঃ আনোযারুল ইসলাম, হাফেজ মাওলানা মোঃ জামাল উদ্দিন, মাওঃ মাহবুবুল আলম, ইসলামী ফ্রন্টের নেতা আব্দুল অদুুদ, ডাঃ এস,এম এমরান, আব্দুর রহিম, সংগঠক মুঃ বাবুল হোসেন বাবলা, ইমতিয়াজ ইমু, হাবিব উল্লাহ সহ গাউছিয়া কটিমি সদস্য।

এছাড়া স্টিল মিল খেজুঁর তলা, কাটগড় মুসলিমাবাদ, বন্দরটিলা, সল্টগোলা ক্রসিং, মাইজপাড়া,  বিজয় নগর এলাকাতে তৌহিদী মুসলিম জনতা ধর্ম অবমাননার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে। সবার একটাই দাবি দেশে আহলে হাদীসের মসজিদ মাদ্রাসা উচ্ছেদ করে দায়ি কোরআন অবমাননকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

কর্মসূচিঃ এর আগে নগর সভাপতি মাওঃ জান্নাতুল ইসলাম আগামী ১সপ্তাহের মধ্যে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে ডিসি,সকল থানার ওসি এবং স্থানীয় কাউন্সিলরকে স্মারক লিপি প্রদান করে আহলে হাদীস যুব সংঘের নামে মসজিদ-মাদ্রাসা বন্ধের দাবি জানাবেন। তাও যদি প্রশাসন করতে না পারেন, তবে তৌহিদী জনতা গণ আন্দোলন করে এহেন অন্যায়ের সমোচিত জবাব জানাবেন বলে হশিয়ারী দেন।

Advertisements

2 মন্তব্য

  1. মসজিদ মাদ্রাসা উচ্ছেদের দাবীকারীরা কি ধরনের মুসলিম। চরমোনাই অনুসারীদের চক্রান্ত কিনা ভেবে দেখা উচিত। আহলে হাদিসের কিছু ভুল থাকডে পারে কিন্তু চরমোনাই পুরাটাই শিরক ও বিদাতের কারখানা।

একটি মন্তব্য দিন