সুবিধাবঞ্চিত ১০০ শিশুর দশ বছরের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিল লায়ন্স ক্লাবস

0
ব্রেকিং নিউজ
  •  

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

.

চট্টগ্রামে সুবিধাবঞ্চিত অসহায় ১০০ শিশুর দশ বছরের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিল লায়ন্স ক্লাবস ইন্টারন্যাশনাল জেলা ৩১৫-বি৪ বাংলাদেশ। গতকাল ২৫ অক্টোবর বুধবার রাতে এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এসব শিশুদের বাবা মায়ের হাতে চুক্তিপত্র ও প্রথম বছরের অনুদানের চেক হস্তান্তর করা হয়।

এ উপলক্ষে নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন লায়ন্স ক্লাবস ইন্টারন্যাশনালের জিএমটি এরিয়া লিডার লায়ন স্বদেশ রঞ্জন সাহা। বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউন্সিল চেয়ারপার্সন লায়ন এম কে বাশার, জেলা গভর্নর লায়ন মনজুর আলম মঞ্জু, প্রথম ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন নাসিরুদ্দিন চৌধুরী, দ্বিতীয় ভাইস জেলা গভর্নর লায়ন কামরুন মালেক, ঢাকা জেলার গভর্নর লায়ন সাইফুল ইসলাম সোহেল।

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ বলেন, জেলা গভর্নরের ডাক শিশুদের জন্য আমরা ’এর’ ওপর এ বছরের শুরু থেেেক চট্টগ্রাম জেলা যেসব কাজ করছে তা অভূতপূর্ব। এক বছরের জন্য একশ শিশুর লেখাপড়ার দায়িত্ব নেয়া এটি যে শুধু কথার কথা নয়, কাজেই তা প্রমাণ করে দিয়েছেন জেলা গভর্নর । আশা করি আগামী দিনেও চট্টগ্রাম অন্যান্য সব কাজের মত লায়নইজমের অগ্রবর্তী থাকবে।

অনুষ্ঠান কমিটির চেয়ারম্যান লায়ন আবু মোরশেদের সভাপতিত্বে ও লায়ন  ডা. জাকিরুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, কেবিনেট সেক্রেটারি লায়ন জাফরউল্লাহ চৌধুরী, কেবিনেট ট্রেজারার লায়ন জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী, লেডি গভর্নর লায়ন রাশেদা বেগম রাশু, অনুষ্ঠান কমিটির সেক্রেটারি লায়ন অ্যাডভোকেট লায়ন নুরুল ইসলাম, লায়ন আশ্রাফ আলী আশু,  লিও জেলা সভাপতি লিও মোঃ আরিফ সহ দায়িত্বশীল লায়ন ও লিও নেতৃবন্দ।

অনুষ্ঠানে অনুভূতি ব্যক্ত করেন সাহায্যপ্রাপ্ত শিশুদের কয়েকজন বাবা-মা। তারা নিজেদের সন্তানদের লেখাপড়ার দায়িত্ব নেয়ায় লায়ন্স নেতৃবৃন্দের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। লায়ন নেতৃবৃন্দ সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে শিশুদের গড়ে তোলার আহবান জানান।

উল্লেখ্য, ওয়ান ক্লাব ওয়ান চাইল্ড প্রজেক্টের আওতায় প্রত্যেক শিশুকে তাদের লেখাপড়ার খরচ এবং পুষ্টিকর খাবার বাবদ দশ বছর পর্যন্ত প্রতিমাসে ২ হাজার টাকা করে অনুদান দেয়া হবে।

কোন মন্তব্য নেই