মিরসরাইয়ে নিজ দলীয় কর্মীদের হাতে ছাত্রলীগ নেতা খুন

0
মিরসরাই মার্ডার
কুপিয়ে আহত করার তিনদিনের মাথায় বৃহস্পতিবার মারা যান মীরসরাই ছাত্রলীগ নেতা নাঈমুল ইসলাম।

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে নিজদলীয় কর্মীদের হাতে আহত হয়ে ছাত্রলীগ নেতা নাঈমুল ইসলাম (২২) এর মৃত্যু হয়েছে। দুইদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান কার স্বজনরা।

এর আগে গত ২৭ জুন রাতে স্থানীয় যুবলীগ-ছাত্রলীগের কর্মীদের হামলায় গুরত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন নাঈমুল ইসলাম।

মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, সাহেরখালীতে হামলা ও পরে আহত নাইমুল মারা যাওয়ার বিষয়ে থানায় কেউ কোন অভিযোগ করেনি। তবে পুলিশ খোঁজখবর নিয়ে দেখছে। অভিযোগ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থ্য নেয়া হবে।

নিহত নাঈমুল নিজামপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কলেজ ছাত্রলীগ কমিটি সদস্য ছিলেন। তিনি সাহেরখালী ইউনিয়নের পশ্চিম সাহেরখালী গ্রামের আবদুল মজিদ চৌধুরী বাড়ির মফিজুর রহমানের পুত্র।

নাঈমুলের বড় ভাই মোহাম্মদ শরিফ জানান, গত ২৭ জুন রাত ১০টার সময় স্থানীয় ছাত্রলীগ কর্মী সাদ্দাম ইরফান, মনিরুল ইসলাম সহ ১৫-২০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল তাদের ঘরে আক্রমন করে।

ঘরে ব্যপক ভাংচুর চালিয়ে তাঁকে ও তাঁর ছোটভাই নাঈমুলকে টেনে হিঁছড়ে সাহেরখালী বেড়িবাঁধ এলাকায় নিয়ে যায়। শরিফ জানান তিনি কোনমতে তাদের কাছ থেকে ছুটে আসলেও তাঁর ভাইকে তারা উপর্যপুরি কুপিয়ে সাহেরখালী বোর্ড অফিসের সামনে ফেলে যায়।

এরপর স্থানীয় চেয়ারম্যান কামরুল হায়দার চৌধুরী তার বাবাকে ফোন করলে নাঈমুলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চমেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে দুদিন চিকিৎসার্ধীন থাকা অবস্থায় বুধবার বেলা ১১টায় সে মারা যায়।

উপজেলা ছাত্রলীগ আহবায়ক মাঈনুর ইসলাম রানার সাথে এ ব্যাপারে কথা বলতে চাইলে তার মোবাইলফোন বন্ধ পাওয়া যায়। যুগ্ন আহবায়ক ইব্রাহীম খলিল ভূঁইয়া জানান, তিনি ছাত্রলীগ নেতা নাইমুল চৌধুরীর মৃত্িযর বিষয়ে কিছু জানেন না। খোঁজখবর নিয়ে দেখবেন।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন