আসামী তোতলা জসিমের স্বীকারোক্তি
ব্রোকারী ও ট্রাক স্ট্যান্ড দখল বিরোধে যুবদল নেতা হারুন খুন

0
নিহত হারুন ও গ্রেফতারকৃত তোতলা জসিম।

চট্টগ্রামের মাদারবাড়ী এলাকার পরিবহন ব্যবসায়ী ও যুবদল নেতা হারুণ চৌধুরীকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গুলি করে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছে হত্যাকান্ডে অংশ নেয়া জসীম উদ্দিন প্রকাশ তোতলা জসীম।

রবিবার তাকে গ্রেফতারের পর পুলিশকে সে এ তথ্য জানায় জসীম। জসীম পশ্চিম মাদারবাড়ি এলাকার মৃত আবু তাহেরের ছেলে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবদে জসিম জানায়, হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী লিটন, নুরুন্নবী ও আলমগীর। তারা সবাই স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আধিপত্য বিস্তারতো আছেই, পাশাপাশি মারের বদলা হিসেবে সেদিন হারুনের উপর হামলাটা করা হয়েছিল। বেশ কিছুদিন ধরে, ট্রাক স্ট্যান্ডটির দখল নিয়ে দুটো গ্রুপে বিভক্ত হয়ে পড়েছিল সেখানকার ব্রোকাররা। গ্রেফতার হওয়া জসীম নিজেও একজন ব্রোকার।

জসিম অন্যতম পরিকল্পনাকারী নুরুন্নবীর ভাতিজা। নুরুন্নবীর চাচাত ভাই হলো গুলিবর্ষণকারী আলমগীর ও তার ভাই কাওসার। নুরুন্নবীর শালা দুলাল। আবার আলমগীর ও কাওসারের চাচাত ভাই হৃদয়।

জসীম পুলিশকে আরো জানিয়েছে, নুরুন্নবী ও আলমগীর তাকে সেদিনের মিছিলে থাকতে বলেছিল। প্রয়োজনে যেন ডাক দিতে পারে। সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল সে।

এ বিষয়ে সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মর্জিনা আক্তার বলেন, ঘটনায় কারা জড়িত ছিল, সে সম্পর্কে আমরা মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছি। জসীম ঘটনায় জড়িত ছিল। সিসিটিভি ফুটেজেও তার উপস্থিতির প্রমাণ পেয়েছি। প্রাথমিকভাবে সে যেসব তথ্য দিয়েছে, ইতোপূর্বে পাওয়া তথ্যের সাথে তার কিছু মিল পেয়েছি। তাই বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমরা রিমান্ডের আবেদন করছি।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ৩ ডিসেম্বর নগরীর কদমতলী এলাকায় ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ভাষণের স্বীকৃতি উদযাপনে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের র‌্যালী থেকে কিছু যুবক নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হারুন চৌধুরী গুলি কওে হত্যা করে। এঘটনায় সদরঘাট থানায় নিহত যুবদল নেতার বড়ভাই হুমায়ুন কবির চৌধুরী বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলার এজাহারে সরসরি কাউকে আসামী করা না হলেও অভিযোগের বিবরণীতে ১০ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। তারা হলেন, মো. আলমগীর, মো. কাওসার, নূরুন্নবী, মোশারফ হোসেন লিটন, মো, শরীফ, মো. জসীম উদ্দিন, তানভীর হোসেন, তৌফিক হোসেন, মো. দুলাল ও ইফতেখার।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন