“যতবার চুরি করতে গিয়েছি ততবারই ধরা পড়েছি”

0
.

বোয়ালখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
সন্ধ্যায় সিঁদ কেটে ঘরে ঢুকে রাত গভীর হওয়ার অপেক্ষায় থাকতো রাসেল। ঘরের সদস্যরা ঘুমিয়ে পড়লে মূল্যবান মালামাল নিয়ে সটকে পড়তো রাসেল।

আজ মঙ্গলবার (৮ মে) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার মধ্যম কধুরখীল যতীন্দ্র মাষ্টারের ঘরের সিঁদ কেটে ঢুকে পড়েছিল রাসেল। ঘরের দোতলায় অবস্থান নিলেও শেষ রক্ষা হয়নি তার।

স্থানীয়রা ঘরের বাইরে গর্ত দেখতে পেয়ে হৈ চৈ বাঁধিয়ে ফেললে ভেস্তে যায় রাসেলের চুরির পরিকল্পনা। সেই গর্তের সূত্র ধরে সারা বাড়ি তল্লাশি করে দোতলা থেকে নামিয়ে উত্তম মধ্যম দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করা হয় চোর রাসেলকে

মো. শেখ রাসেল (৩৮) খুলনা বাগেরহাট জেলার সিংরাই উপজেলার কাঁঠালিয়া পৌরসভার মালেক শেখের ছেলে। সে নগরীর কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকার কুলাপাড়া সামাদ কলোনীর ভাড়াবাসায় ৭ বছর ধরে বসবাস করছে। এর পূর্বে বাগেরহাট জেলায় দুইবার চুরি করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়েছিল বলে জানিয়েছে রাসেল।

বোয়ালখালী উপজেলার কধুরখীলের এক বাড়ি থেকে দা ও শাবল চুরি করে যতীন্দ্র মাষ্টারের ঘরে সিঁদ কাটে। এরপর ঘর থেকে হাঁড়ি পাতিল বের করার সময় ধরা পড়ে যান বলে জানিয়েছে আটককৃত রাসেল।  সে জানায়, উপজেলার কধুরখীল এলাকার নেছার বার্বুচির সাথে কাজ করেন।

রাসেল বলেন, বিয়ে করলেও চুরি করার কারণে তার বৌ তাকে ছেড়ে চলে গিয়েছে।  তার একটি মেয়েও ছিল। মেয়েটি ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে গত এক বছর আগে মারা গেছে।  সে আক্ষেপ করে সাংবাদিকদের বললো, “যতবারই চুরি করতে গিয়েছি, ততবারই ধরা পড়েছি”।

বোয়ালখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আরিফুর ইসলাম, কধুরখীল এলাকায় চুরি করতে গিয়ে রাসেল জনতার হাতে ধরা পড়ে। তাকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ইদ্রিচ জানান, এলাকায় চোরের উৎপাত বেড়ে গেছে বেশ কয়েকদিন ধরে। তবে এলাকাবাসী মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক চোরকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন