সৈকতকে মরণফাঁদে পরিনত করেছে ব্যবসায়িক দূর্বৃত্তরা

বাশঁবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতে নিহত যুবদল কর্মিদের বাসায় ডা. শাহাদাত

0
.

সীতাকুণ্ডের বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমে মরণফাঁদে নিহত ২১নং জামাল খান ওয়ার্ড যুবদলের তিন কর্মির স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানাতে তাদের বাসায় যান চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা.শাহাদাত হোসেন।

মঙ্গলবার বিকালে নগরীর মোমিন রোড ঝাউতলাস্থ নিহতদের স্বজনদের সাথে দেখা করে সমবেদনা জানান তিনি। এসময় প্রিয় নেতাকে কাছে পেয়ে নিহতদের স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

পরিবারের সদস্যদের হারিয়ে শোক ও ক্ষোভে ফেটে পড়া স্বজনদের সান্তনা দিতে গিয়ে ডা.শাহাদাত হোসেন বলেন, সরকারের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যমন্ডিত চট্টগ্রামের বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতকে মরণফাঁদে পরিণত করেছে ব্যবসায়িক দূর্বৃত্তরা। একদিকে সরকারি দলের এক নেতা বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত অবৈধভাবে জবরদখল করে বীচ ব্যবসা খুলে বসেছে। অপরদিকে সরকারী মহলের বিশেষ আনুকূল্যে থাকা একটি শিল্প গ্রুপ উক্ত সমুদ্র সৈকত থেকে অনুমোদন ব্যতিত অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলন করে বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতকে মৃত্যুকূপে পরিণত করেছে। পর্যটকদের যথাযথ নিরাপত্তা ও সুবিধা নিশ্চিত না করে বৈধ-অবৈধপন্থায় অর্থ উপার্জনের মানসিকতার কারণে আজ চট্টগ্রামের সম্ভাবনাময় পর্যটনশিল্প ধ্বংস হতে বসেছে।

সাধারণ জনগন তাদের অবসর সময়ে কোথাও গিয়ে একটু আনন্দ করবে সে নিরাপত্তা টুকু আজ নেই।

পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে একের পর এক সংঘটিত মর্মান্তিক ঘটনার কারণে চট্টগ্রামে পর্যটকদের আগমন দিন দিন কমে যাচ্ছে। বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকতকে বিপদসংকুল করার পেছনে যারা জড়িত তাদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। তিনি নিহতদের পরিবারদের দলের ও ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, জামাল খান ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুস সালাম নিশাদ, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক জাহেদুল আলম, মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, বিএনপি নেতা আবু মোহাম্মদ মহসিন চৌধুরী, আব্দুল জলিল, মাহমুদ হোসেন চৌধুরী আকতার, দিদারুল ইসলাম, এড.আনোয়ার হোসেন, আবু বক্কর, ফারুক হোসেন স্বপন, মনজুর আহমেদ, মোস্তাক সালাম তালুকদার, হারুন কাকন, নূর হোসেন, এফএএফ রুমি, দিদারুল আলম দিদার, মোঃ কামাল, ছাত্রদল নেতা সৌরভ প্রিয় পাল, মেজবাহুল নোমান, শ্রমিকদল নেতা আলমাস, যুবদল নেতা দেলোয়ার হোসেন দেলু, নূর ইসলাম, মোঃ মোতালেব, মোঃ জাফর, ছাত্রদল নেতা সৈয়দ সাফওয়ান আলী প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই