চট্টগ্রামের অর্থনৈতিক সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল-ব্রিটিশ এমপি রুশানারা আলী

0
.

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাণিজ্য বিষয়ক দূত রুশানারা আলী বলেছেন বাংলাদেশের বিশেষ রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকা এবং তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের আগ্রহ রয়েছে।

চট্টগ্রাম হলো বাংলাদেশ এবং এই অঞ্চলের হৃৎস্পন্দন উল্লেখ করে তিনি বলেন, চট্টগ্রামের অর্থনৈতিক সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল। যোগাযোগ এবং ব্যবসার অসাধারণ এক ক্ষেত্র চট্টগ্রাম।

তিনি আজ মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রামের পাঁচ তারকা রেডিসন ব্লু চিটাগাং বে-ভিউ হোটেলে চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য দীর্ঘ মেয়াদি লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে জানিয়ে রুশনারা আলী বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যে বাংলাদেশের সফল হওয়ার মত নানা উপাদান আছে। কিছু চ্যালেঞ্জও আছে।

যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশের এনার্জি ও রেলওয়ে খাতে বিনিয়োগে অাগ্রহী বলে মন্তব্য করে রুশানারা আলী বলেন, ব্যবসার পরিবেশে উন্নতি ঘটাতে বাংলাদেশ নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে। এটা একটা চলমান প্রক্রিয়া।”

তিনি বলেন, আমাদের যেমন বড় চ্যালেঞ্জ ব্রেক্সিট। এখানে তেমনি ব্যবসার জন্য ভালো পরিবেশ ও সুশাসন নিশ্চিত করা। ভালো ব্যবসার পরিবেশ উচ্চ বিনিয়োগ নিশ্চিত করবে।

চট্টগ্রামে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে যুক্তরাজ্য আগ্রহী কি না এ প্রশ্নের জবাবে রুশনারা আলী বলেন, যুক্তরাজ্য যেমন টেকনোলজি সিটি কনসেপ্ট (তথ্যপ্রযুক্তি নগরীর ধারণ) নিয়ে কাজ করেছে।

.

বাংলাদেশের বিশেষায়িত রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকাগুলোতে বিনিয়োগ আগ্রহী জানিয়ে বলেন, অনেক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি ব্যবসায়ী এক্ষেত্রে আগ্রহী। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনকে এক্ষেত্রে উদ্যোগ নিতে হবে।

ইপিজেডগুলোতে কি কি সুবিধা দেওয়া হচ্ছে তা যেন সেখানকার ব্যবসায়ীরা জানতে পারে। পাশাপাশি সরকারের উচিত বাণিজ্য সম্মেলনগুলোতে এসব সুযোগের কথা তুলে ধরা।”

তিনি বলেন, বাংলাদেশের বিমানবন্দর সম্প্রসারণ, এনার্জি, ক্লিন এনার্জি, আইটি ও শিক্ষা, সেবা এবং প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্টের মত খাতে নতুন করে বিনিয়োগ করতে যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীরা আগ্রহী।

এবং বাংলাদেশ বছরে যুক্তরাজ্যে দুই দশমিক চার বিলিয়ন পাউন্ডের পণ্য রপ্তানি করে। বিপরীতে যুক্তরাজ্য বাংলাদেশে রপ্তানি করে ৫৭৫ মিলিয়ন পাউন্ডের পন্য।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বিনিয়োগকারী দেশ যুক্তরাজ্য। ২০১৬-১৭ সালে বাংলাদেশে যুক্তরাজ্য ৩৪০ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিয়োগ করেছে।

আলোচনায় অংশ নেন ব্রিটিশ ডেপুটি হাই কমিশনার কানবার হোসেন বোর, ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড এর ডিরেক্টর বেনজামিন কান্টমোর, ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড এর ডেপুটি ডিরেক্টর খালিদ গাফফার, ব্যবস্থাপাক আবির বড়ুয়া এবং প্রেস অফিসার নারায়ন দেবনাথ।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন