কোটা পদ্ধতি তুলে দেয়ার পক্ষে অভিমত কোটা পর্যালোচনা কমিটির

0
.

সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে সরকার ঘোষিত কোটা পর্যালোচনা কমিটি   চাকরিতে কোটা পদ্ধতি তুলে দিয়ে প্রাথমিকভাবে উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার পক্ষে মতামত দিচ্ছে।

কোটা সংস্কার বা পর্যবেক্ষণে গঠিত কমিটির প্রধান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সোমবার (১৩ আগস্ট) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের একথা জানান।

তিনি বলেন, কোটার ব্যাপারে আমরা কমিটি প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছি। আমরা মেরিটকে প্রাধান্য দিয়েৃ, আমরা মাস খানেক কাজ করলাম, প্রায় চূড়ান্ত।

সরকারি চাকরিতে ৬৫ শতাংশ কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে গত ২ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিবকে প্রধান করে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করে সরকার। প্রাথমিকভাবে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হলেও পরবর্তীতে আরো ৯০ কার্যদিবস সময় পায় এ কমিটি।

এর মধ্যে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে সোমবারকোটা নিয়ে কথা বলেন সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

তিনি বলেন, ‘আমাদের কমিটির মোটামুটি সুপারিশ হলো- কোটা অলমোস্ট উঠিয়ে দেওয়া, মেধাকে প্রাধান্য দেওয়া। তবে আদালতের একটা ভারডিক্ট আছে, সুপ্রিম কোর্টের যে, মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা প্রতিপালন করতে হবে, সংরক্ষণ করতে হবে এবং যদি খালি থাকে খালি রাখতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার আদালতের কাছে মতামত চাইবে। যদি আদালত এটাকেও ওকে করে দেয় তাহলে কোটা থাকবে না’।

আর যদি আদালত বলেন, ভারডিক্ট দেন যে, না ওই অংশটুকু সংরক্ষিত রাখতে হবে তাহলে ওই অংশটুকু বাদ দিয়ে বাকি সব উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এটা হলো প্রাথমিক সুপারিশ।

কোন মন্তব্য নেই