চট্টগ্রামে গণপিটুনীতে ৩ ‘ডাকাত’ নিহত, আটক ৫

0
গণপিটুনির পর স্থানীয় কমিশনার এলাকা পরিদর্শনে যান।

চট্টগ্রাম অফিস: চট্টগ্রামে মহানগরীর কাট্টলী এলাকায় গণপিটনিতে তিন ‘ডাকাত’ নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে আকবর শাহ থানার উত্তর কাট্টলী বেরিবাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ সময় গণপিটুনীতে আহত আরো ৫ ডাকাতকে পুলিশ আটক করেছে।

নিহতদের মধ্যে মো.সাগর (৩০) ও মো. রাসেল (২৩) নামে দুইজনের নাম জানা গেলেও আরেকজনকে পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন, আলাউদ্দীন(১৭), রুবেল(১৮) রানা(২০) মনির হোসেন(১৮) ও রুবেল(১৯)।

dakat atok
আটককৃত পাঁচ সন্ত্রাসী

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি সময়ে কাট্টলী এলাকায় ডাকাত দলের উৎপাত বেড়ে যায়। গত এক সপ্তাহে কয়েকবার ডাকাত হানা দেওয়ার ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে উঠেছে সাধারণ মানুষ। ফলে ডাকাত প্রতিরোধে রাত জেগে পালাক্রমে পাহারা দিয়ে আসছিলো করেছে কাট্টলীবাসী।

এ অবস্থায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ৮ জনের ডাকাতদল ডাকাতির প্রস্তুতির সময় স্থানীয় জনতা ঘেরাও করে গণপিটুনি দিলে ৩ ডাকাতঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে পুলিশ গিয়ে ৫ ডাকাতকে আটক করে।

স্থানীয় যুবদল নেতা সাহেদ আকবর জানান, উত্তর কাট্টলী সাগরপাড় সংলগ্ন বেডী বাধ দিয়ে মঙ্গলবার রাত তিনটায় ডাকাত দল লোকালয়ে প্রবেশ করার সময় পূর্ব থেকে ডাকাত প্রতিরোধে পাহারারত এলাকার জনগণ ও পুলিশ যৌথভাবে ডাকাত দল ঘেরাও করলে ডাকাত দল গুলি ছোঁড়ে। এতে কয়েক জন আহত হয়, এসময় উত্তেজিত জনতা ৮ ডাকাতকে আটক করে গণপিটুনী দিতে থাকলে তিনজন ঘটনাস্থলে তে মারা যায়, পাচঁজনকে পুলিশ অস্ত্রসহ আটক করেছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ দুইটি বন্দুক, চারটি কিরিচ ও চাপাতি উদ্ধার করেছে।

আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, আটক ডাকাতদের কাছ থেকে এলজি বন্দুকসহ বিপুল সংখ্যক অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে উত্তর কাট্টলী এলাকার ডাকাতি হয়ে আসছিলো। এ এলাকার মানুষরাতে পালা করে পাহারা দিয়ে আসছেন।

লাশগুলো মর্গে প্রেরণকরা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বেশ কয়েকদিন যাবত আকবর শাহ থানার কর্নেল হাট থেকে তিনটি কানেকটিং সড়ক কর্নেল জোর্নস সড়ক জাকের আলী সড়ক ঈশান মহাজন রোড, সাগর পাড় সংলগ্ন মুকিম তালুকদার বাড়ী, আজিম তালুকদার বাড়ী, জাকের আলী সওদাগর বাড়ী, কুতুব বাড়ী, বিশ্বাস পাড়া মদিন উল্লা মিয়াজীর বাড়ী, দত্ত বাড়ী, কালীবাড়ী, আলী ফকির বাড়ীর শত শত মানুষ রাত জেগে পাহারা দিয়ে আসছে। গত ২৪ এপ্রিল রোববার রাতে স্থানীয় কাউন্সিলন ও প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দীন মঞ্জু, আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদীপ দাস ডাকাত প্রতিরোধে তিনটি পয়েন্টে পৃথক পৃথক মত বিনিময় সভা করেছিলেন।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন