আরব আমিরাতে আতাউর রহমান খান কায়সারের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত

0
.

সংযুক্ত আরব আমিরাতে পালিত হলো মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য, সংবিধান প্রণেতা, সফল রাষ্ট্রদূত আতাউর রহমান খান কায়সার এর ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী।

গত সোমবার আরব আমিরাতের বি এন্ডবি রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশের গুণী প্রয়াত নেতার স্মরণসভার আয়োজন করে আতাউর রহমান খান কায়সার স্মৃতি সংসদ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটি। একই দিন একই মঞ্চে শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করা হয় আতাউর রহমান খান কায়সারের ছোট ভাই ও চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, আনোয়ারা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা কৃষিবীদ আনোয়ারুল ইসলাম খান শওগতকে।

স্মৃতি সংসদ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্ঠা মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে ও আহ্বায়ক আবু তৈয়ব মোহাম্মদ রাসেলের সঞ্চালনায় স্মরণ সভা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার আবু জাফর চৌধুরী। অনুষ্ঠানে টেলি কনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন আতাউর রহমান খান কায়সার এর সুযোগ্য কন্যা বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, আনোয়ারুল ইসলাম খান শওগাত এর সুযোগ্য সন্তান কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ইরফানুল ইসলাম খান পিএসসি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দুবাই আওয়ামীলীগের সভাপতি দেলোয়ার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ এনাম, চন্দনাইশ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আবু হেনা ফারুকী, আতাউর রহমান খান কায়সার স্মৃতি সংসদ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মহিউদ্দিন কাদের সামি, আনোয়ারা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসাইন, বৃহত্তর আরব আমিরাতস্থ চট্টগ্রাম সমিতির সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর, আতাউর রহমান খান কায়সার স্মৃতি সংসদ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ জসিম, মনির আহমদ, মোহাম্মদ হান্নান, মোহাম্মদ সেলিম, হান্নান চৌধুরী প্রমূখ।

বক্তারা বলেন আতাউর রহমান খান কায়সার ছিলেন একজন আদর্শিক, প্রজ্ঞাবান রাজনীতিবীদ ও লেখক। তিনি সৎ সাহসীকতার সাথে রাজনীতির নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে আন্দোলনের যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছিলেন তা কখনো অস্বীকার করা যাবেনা। স্মরণ সভা অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামে যে কর্ণফুলী চ্যানেল হচ্ছে তা যেনো এই কীর্তিমান পুরুষ আতাউর রহমান খান কায়সারের নামে নামকরণ করার জোর দাবী জানিয়েছেন বক্তারা।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন