ফটিকছড়িতে নজিবুল বশরের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের জুতা মিছিল

0
.

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে জুতা মিছিল ও বিক্ষোভ করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ। মহাজোটের প্রার্থী নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীকে নৌকার প্রার্থী মনোনয়নের প্রতিবাদে এবং আওয়ামীলীগ থেকে প্রার্থী ঘোষনার দাবীতে এ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার সকালে উপজেলা সদরে এশিয়া প্লাজাস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিভিন্ন ইউনিয়নের তৃনমুলের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়। এক পর্যায়ে দলীয় নেতা কর্মীদের উপস্থিতিতে লোকে লোকারন্য হয়ে উঠে চট্টগ্রাম খাগড়াছড়ি প্রধান সড়ক। এসময় চট্টগ্রাম খাগড়াছড়ি সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

.

সকাল থেকে উপজেলার দলীয় কার্যালয়ের সামনে মোতায়েন করা হয় বিপুল সংখ্যক পুলিশ। যে কোন ধরনের বিশৃংখলা এড়াতে সতর্ক ছিল প্রশাসন।
বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে সমাগত আওয়ামীলীগের বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা এসময় নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দিতে থাকে।

বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা এসময় ভান্ডারীর গালে গালে জোতা মারো তালে তালে” হৈ হৈ রৈ রৈ বর্ণ চোরা গেলি কই ইত্যাদি শ্লোগান দিতে থাকে। দুপুরে কয়েক হাজার নেতাকর্মীদের অংশ গ্রহনে বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ করে বাস স্টেশন চত্ত্বরে এসে শেষ হয়। মিছিল পূর্ব এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবুল হক চৌধুরী বলেন, আমরা দলীয় প্রার্থী চাই। দল থেকে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় পার্লামেন্টারী বোর্ডকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। আশা করছি শেষ পর্যায়ে পরিবর্তন হবে। অন্যথায় দলীয় স্বতন্ত্র প্রার্থীকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রীকে এ আসনটি উপহার দেব।

.

এ সময় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নাজিমুদ্দিন মুহুরী বলেন,নেত্রী তৃনমুলের দাবীকে উপক্ষো করলে উপজেলা আওয়ামীলীগ পরবর্তী করনীয় নির্ধারন করবে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে ।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মাহমুদুল হক বলেন, হায়েনাদের কবল থেকে দলীয় প্রতীক মুক্ত করে প্রকৃত আওয়ামীলীগের কর্মীকে নৌকার প্রার্থী হিসেবে দেখতে চাই।

এদিকে বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলার বিবিরহাট বাজার পদক্ষিন করার সময় পুলিশ মিছিলের উপর অতর্কিত লাটিচার্জ করলে আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মাহমুদুল হক (৪৫),মাসুদ (৪০), মুজিবুর রহমান স্বপন (৪৫) জসিম উদ্দিন মুহুরী (৪৮), রাজিয়া মাসুদ (৬০) আহত হন। তাদেরকে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। একই সময় বিক্ষোভকারীদের হামলায় উপ পুলিশ পরিদর্শক আবদুল জলিল (৩৮) কপালে আঘাত পান। তবে ফটিকছড়ি থানার ওসি বাবুল আকতার মিছিলে লাটি চার্জের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন বিক্ষোভকারীরাই পুলিশের উপর চড়াও হয়। পুলিশ কড়া সতর্ক অবস্থায় থাকায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে মন্তব্য করেন তিনি।

.

এদিকে দল থেকে এমপি প্রার্থী নিশ্চিত না হওয়ায় গত কয়েকদিন ধরে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে উপজেলার সর্বস্তরের আওয়ামী শিবিরে। মহাজোট নয় দলীয় প্রার্থীর পক্ষে সংগঠিত হচ্ছে ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। যে কোন ত্যাগের বিনিময়ে এবারের নির্বাচনে এ আসন থেকে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে বদ্ধ পরিকর তারা। ফটিকছড়িতে বিভিন্ন সময়ে প্রতিপক্ষের হাতে নিহত হওয়া দলের ৫২ নেতাকর্মীর হত্যার বিচার নিশ্চিত করতে এবার দল থেকেই এমপি নির্বাচিত করতে মরিয়া দলটির নেতা কর্মীরা।

ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের তৃনমুল নেতাকর্মীদের দাবী শেষ পর্যন্ত ভোটের মাঠে যেন থাকেন এটিএম পেয়ারুল ইসলাম। ইতোমধ্যে তারা নানা দেন দরবার শুরু করেছেন। সিনিয়র নেতাদের নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করছেন তৃনমুল নেতারা। ফটিকছড়িতে দলীয় প্রার্থী শেষ পর্যন্ত এটিএম পেয়ারুল ইসলামকেই চান উপজেলা আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী নজিবুল বশর মাইজ ভান্ডারীকে এমপি নির্বাচিত করে যে ভূল করেছে আওয়ামীলীগ এবার তার মাশুল গুনতে প্রস্তুত তারা। নির্বাচনে ফটিকছড়িতে প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে মহাজোটের দুই শরীক দল আওয়ামীলীগ ও তরিকত ফেডারেশনের দ্বন্ধ আরো প্রকাশ্য প্রকট হল।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এমপি নির্বাচিত হন তরিকত চেয়ারম্যান নজিবুল বশর ভান্ডারী। নির্বাচনের পর বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের গত ৫ বছরে নজিবুল বশর ভান্ডারীর নানা বিতর্কিত ভুমিকায় ক্ষুদ্ধ স্থানীয় আওয়ামীলীগ। প্রকটাকার ধারন করে দলের অভ্যন্তরীন কোন্দল। দলের কোন্দল বৃদ্ধির পেছনে এমপি নজিবুল বশরের নেপথ্যে কাজ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া বিগত ৫ বছরে কাংখিত উন্নয়ন থেকেও বঞ্চিত ফটিকছড়ি।

সব মিলিয়ে নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে নজিবুল বশরের সাথে দুরত্ব বাড়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগের। অবশ্য দলের একটি অংশ শুরু থেকেই রয়েছে এমপি ভান্ডারির সাথে। ইতিপূর্বে নজিবুল বশরকে মহাজোট থেকে মনোনয়ন না দিতে দলের কেন্দ্রীয় নীতি নির্ধারনী মহলে চিঠি দিয়েছে উপজেলা আওয়ামীলীগ। উপজেলার আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা থেকে সিদ্ধান্ত নিয়ে এ চিঠি দেয়া হয়। তাতে উল্লেখ করা হয় মহাজোটের শরীক দল নয় নিজ দল থেকে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার জন্য। দলীয় প্রার্থী না হলে নির্বাচনে কাজ করবেনা এমন বিষয় উল্লেখ করা হয় চিঠিতে।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন