১২ জনকে আটক নিয়ে পুলিশের লুকোচুরি
অাকবর শাহ জুয়ার আস্তানায় পুলিশের অভিযান!

0
.

চট্টগ্রাম মহানগরীর আকবরশাহ থানার আকবরশাহ (রহ:) বাজার কমিটির সদস্য সাইফুল মিস্ত্রির গ্যারেজে মদ জুয়ার আসর থেকে ১২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

৫ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে আকবরশাহ থানা পুলিশ এই অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে থানায় নিলেও গভীর রাত পর্যন্ত তাদের ছাড়িয়ে নিতে থানায় দফায় দফায় তদবীর চলে বলে স্থানীযরা অভিযোগ করেছেন।

আকবর শাহ থানার পুলিশ অভিযানের বিষয়টি স্বীকার করে কয়েকজনকে আটকের কথা জানালেও বিস্তারিত জানাতে পারেনি।

এদিকে অভিযোগ উঠেছে। আটক ১২জনের মধ্যে জুয়ার আয়োজক রিপন খানকে ছেড়ে দেয়া হলেও সাংবাদিকরা ফোন করার পর ভোর রাতে ফের অভিযান চালিয়ে রিপন খানকে আটক করেছে বলে জানাগেছে।

আকবরশাহ থানার সেকেন্ড অফিসার মোস্তফা কামাল রাত সাড়ে ১২টায় জানান, আমাদের একটি টিম অভিযান চালাচ্ছে। কয়েকজনকে আটকের কথা শুনেছি। তবে বিস্তারিত এখনো বলতে পারছিনা।

একজনকে ছেড়ে দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ ধরণের অভিযানে কাউকেতো ছাড়ার কথা না। বিষয়টি নিয়ে আমাদের এসি স্যার দেখছে।

অভিযোগ রয়েছে, আকবরশাহ (রহ:) আ/এ বাজার রোডে জালালাবাদ সোসাইটির জায়গার বিপরীত গলিতে আকবরশাহ (রহ:) বাজার কমিটির সদস্য সাইফুল মিস্ত্রির গ্যারেজে স্হানীয় তিন যুবক বিগত কয়েকমাস যাবত জুয়া,মদ এবং ইয়াবার আসর বসিয়ে যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

প্রতিদিন বিকেল ৩ টা থেকে রাত ১ টা পর্যন্ত চলে এসব মদ জুয়ার আসর।

এসবের বিরুদ্ধে এলাকার লোকজন সরাসরি প্রতিবাদও করতে পারে না। তবে এক সপ্তাহ আগে তারা বিষয়টি লিখিতভাবে র‌্যাব-৭কে অভিহিত করেন।

এতে বলা হয়, এসবের মূল হোতা বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম সুমন, যুবলীগ নেতা বাচ্চু মিয়া বাবু, বিএনপির সমর্থক।রিপন খান।

স্থানীয় পুলিশ আওয়ামী লীগ নেতা ও কতিপয় ভুয়া সাংবাদিকদের নিয়মিত মাশহারা দিয়ে প্রভাবশালীদের ছাত্রছায়ায় আবাসিক এলাকায় এসব অসামাজিক কাজ চালিয়ে আসছিল।

গতকাল র‌্যাবের অভিযানে পুলিশ মাদকের আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ১২ জনকে থানায় ধরে নিলেও মাদক বিক্রেতা রিপন খানকে পুলিশ থানা থেকে ছেড়ে দেয় বলে স্থানীয়রা জানান।

এ ব্যাপারে জানতে রাতে আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জসিম উদ্দিনের সরকারী মোবাইল ফোনে বার বার কল দেয়া হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া এসআই ফারুকের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য না করে বলেন, আমি কিছুক্ষনের মধ্যে এ ব্যাপারে আপনাকে জানাচ্ছি। কিছু এরপর তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন