লাখো মুসল্লির আমিন আমিন ধ্বনিতে মুখরিত চুনতী সিরাত ময়দান

0
.

সবেমাত্র ভোরের আলো ফুটলো। ঘন কুয়াশা। কনকনে শীত। হু হু করে কাদঁছে লাখো মানুষ। নিজেদের অতীত জীবনের পাপমোচন, বরকতময় জিন্দেগি ও জালিমের জুলুম থেকে মুসলিম উম্মাহকে হেফাজত করার প্রার্থনা মহান আল্লাহর দরবারে। মুর্হুমুহু আমিন আমিন ধ্বনিতে মুখরিত পুরো এলাকা। ১৩ একর আয়তনের সীরাত ময়দান ছাড়িয়ে লোকে লোকারণ্য আশপাশের গ্রাম-রাস্তঘাট। চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার চুনতীতে অনুষ্ঠিত ১৯ দিনব্যাপী সিরাতুন্নবী (সঃ) মাহ্ফিলের আখেরি মুনাজাতের দৃশ্য এটি।

আজ শনিবার ফজরের নামাজের পরপরই অনুষ্ঠিত হয় আখেরি মুনাজাত।

মোনাজাত পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম আন্দরকিল্লাহ শাহী জামে মসজিদের খতিব, আওলাদে রসুল (স.) মাওলানা সৈয়দ আনোয়ার হোসাইন তাহের জাবেরি আলমাদানি। জুমাবার সকাল ৯ টা থেকে একটানা আখেরি মুনাজাতের আগ পর্যন্ত চলে নির্ধারিত বিষয়ে বিদগ্ধ আলেমগণের আলোচনা। সমাপনী দিবসের চারটি অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন আওলাদে রসুল (স.) মাওলানা সৈয়দ আনোয়ার হোসাইন তাহের জাবেরি আলমাদানি, প্রবীণ সমাজসেবক মাওলানা সিরাজুল আরেফিন ছিদ্দিকি, সীতাকুন্ড কামিল মাদ্রাসার শায়খুল হাদিস মাওলানা হোছাইন আহমদ ও গারাঙ্গিয়া ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মালেক।

চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা হাফিজুল হক নিজামী ও মুহাদ্দিছ মাওলানা ফারুক হোসাইনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মাহ্ফিলে নির্ধারিত বিষয়ে আলোচনা করেন, বায়তুশ শরফের পীর বাহরুল উলুম শাহ্ মাওলানা কুতুব উদ্দিন, মরহুম শাহ্ সাহেব কেবলার ঘনিষ্ট সহচর মাওলানা কাজী নাছির উদ্দীন, মাওলানা খন্দকার মাহবুবুল হক, ড. মাওলানা গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, অধ্যক্ষ ড. মাওলানা আমিনুল্লাহ, কুমিল্লা নাগাইশ দরবার শরীফের পীর মাওলানা মোস্তাক আহমদ ফয়েজী, ড. মাওলানা সাদেকুর রহমান আল-আজহারী, হাফেজ মাওলানা কামাল উদ্দিন, মাওলানা জাকারিয়া আল হোসাইনি, অধ্যাপক ড. হাফেজ মাওলানা শহিদুল ইসলাম বারাকাতি প্রমুখ।

এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মরহুম শাহসাহেব কেবলার দৌহিত্র মাওলানা হাফিজুল ইসলাম আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা আব্দুল মালেক মুহাম্মদ ইবনে দিনার নাজাত, ইরান সংস্কৃতি কেন্দ্রের পরিচালক ড. মাওলানা ইসা শাহিদী, বড়হাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জুনাইদ, মিয়া মোহাম্মদ গোলাম কবির, আবু তাহের ইবনে আব্দুস সোবহান, ইদ্রিস মিনহাজ প্রমুখ।

মুনাজাতে আরাকান, সিরিয়া, কাশ্মিরসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নির্যাতিত মুসলমানদের জন্য দোয়া করার সময় মুসল্লিদের কান্নার আওয়াজে পরিবেশ ভারি হয়ে উঠে। এছাড়া বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে নিপিড়িত মজলুম আলেমদের জন্যও দোয়া করা হয়।

এর আগে রাত নামার সাথে সাথে ঐতিহাসিক সিরাত ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠে। প্যান্ডেল ছাড়িয়ে খোলা আকাশের নিচে জড়ো হতে থাকে মুসল্লিরা। ঘন কুয়াশা ও প্রচন্ড শীত উপেক্ষা করে মানুষের উপস্থিতিতে পুরো গ্রাম ভরে যায়। দেশের বিভিন্ন জেলা ছাড়াও পাশের কয়েক রাষ্ট্র থেকে ধর্মপ্রাণ তৌহিদী জনতা মাহ্ফিলে উপস্থিত হয়। পুরো ১৯ দিনব্যাপী উপস্থিত মুসল্লীদের জন্য তাবাররুকের ব্যবস্থা থাকে এ মাহফিলে।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন