একুশে গ্রন্থ মেলায় আসছে শাম্মী তুলতুলের নতুন বই “একজন কুদ্দুস ও কবি নজরুল”

0
.

১৯৩২ সালে চট্টগ্রাম রাউজান উপজেলায় রাউজানবাসী এবং রাউজানের মোহাম্মদপুরগ্রামবাসীর জন্য এক ঐতিহাসিক দিন ছিল। সেখানে অনুষ্ঠিত হয়েছিল একটি তরুণ কনফারেন্স,শিক্ষা ও সাহিত্য সম্মেলন। যার আয়োজক ছিলেন মোহাম্মদপুরবাসী। এই অনুষ্ঠানেই প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

তরুণ কনফারেন্সের অন্যতম নির্বাহী সদস্য ও সংগঠক ছিলেন মেধাবী বালক আব্দুল কুদ্দুস। যে কিশোর ছিল ছোটোবেলা থেকেই কবিভক্ত আর স্বপ্ন দেখতেন কবি নজরুলকে কাছে পাওয়ার।যার ফলে কবি নজরুলের দেখাশোনার সকল দায়িত্ব তার ওপর অর্পণ করা হয়। নজরুলও বন্ধু হিসেবে তাকে বেশ পছন্দ করেন। তাদের দুজনের বন্ধুত্ব ও নজরুলের অজানা কথামালার ঐতিহাসিক গল্প জানা যাবে লেখিকা শাম্মী তুলতুলের কিশোর উপন্যাস-একজন কুদ্দুস ও কবি নজরুল এই বইটিতে।

বইটি সব পাঠককে নিয়ে যাবে সত্যিকার গল্পের এক রুপকথার জগতে। বইটির সার্বিক সহযোগিতা করেছেন জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক জাকির তালুকদার ও লেখক আখতার হুসেন।

এটি পাওয়া যাবে ঢাকা একুশে বই মেলায় ২০১৯। বইটি প্রকাশিত হচ্ছে শীর্ষ প্রকাশনী অনিন্দ্য প্রকাশ থেকে।প্রকাশক আফজাল হোসেন। প্রচ্ছদ করেছেন মুনিরা হোসেন।

বইটির দাম রাখা হয়েছে দুইশত টাকা।

তাছাড়া তার আরও দুটি বই বের হবে শিশু- কিশোরদের জন্য তার নাম হলো কচ্ছপরাজার রাজপ্রাসাদ। বইটির প্রকাশিত হয়েছে পদক্ষেপ বাংলাদেশ থেকে,বইয়ের প্রচ্ছদ করেছেন সজল। দাম ১০০ টাকা।আরেকটি হল ভূত বিজ্ঞানী।এটি বের হবে প্রতিভা প্রকাশ থেকে।

.

উল্লেখ্য যে একটি সাহিত্য, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, মুক্তিযোদ্ধা ও অভিজাতে পরিবারে শাম্মী তুলতুলের জন্ম। পারিবারিক ও নিজের ইচ্ছাশক্তির বলে ছোটবেলা থেকেই তার লেখালেখির হাতেখড়ি। সেই থেকে এক যুগের চাইতেও বেশি সময় ধরে দৈনিক প্রথম আলো,সমকাল,কালের কণ্ঠ,ইত্তেফাক ,বাংলাদেশ প্রতিদিন ও ভারতের বিভিন্ন পত্র- পত্রিকায় লেখালেখি করে শীর্ষে আছেন। পড়াশোনা আর লেখালেখির পাশাপাশি তিনি আবৃত্তি ও বেতারে অনুষ্ঠান গ্রন্থনাও করে থাকেন এবং সংগঠন পাঠাগার আন্দোলন বাংলাদেশের ব্রান্ড এম্বাসেডর হিসেবে যুক্ত আছেন। তিনি নজরুল অগ্নিবীণা সাহিত্য পুরস্কার সহ অন্যান্য জাতীয় সন্মাননায় ভূষিত হন প্রতিবছর পার্বত্য অঞ্চল খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক তার ২১শে ফেব্রুয়ারিতে একক বই মেলার আয়োজন করেন। এই পর্যন্ত তার গ্রন্থ সংখ্যা ১৩ টি।

বই নিয়ে শাম্মী জানান, প্রতিটি বইতেই অন্তত একটি করে মেসেজ রাখার চেষ্টা করেন তিনি। ছোটদের বইগুলোতে হাস্যরসের পাশাপাশি থাকছে শিক্ষণীয় অনেক বিষয়। সবসময় ইতিবাচক মানসিকতা লালন করা লেখক শাম্মী তুলতুল চান, লেখালেখির মাধ্যমে সমাজ পরিবর্তনে অবদান রাখতে।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন