নোয়াখালীর বিস্ময়কর বালক কনক ফের গিনেসবুকে রেকর্ড গড়লেন 

0
.

গিয়াস উদ্দিন রনি, নোয়াখালী:

গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের নাম উঠলো বাংলাদেশের নোয়াখালীর ছেলে কনক কর্মকারের। কাপ-বল ও গিটারের নানান কর্মদক্ষতায় বিস্ময় বালক কনক কর্মকার ৬০০ গ্লাস কপালে রেখে এ রেকর্ড করেন। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার গনিপুর গ্রামে কনকের জন্ম । এক ভাই এক বোনের মাঝে তিনি বড়। নিজের মাঝে খুজে পেলেন অসাধারণ ব্যালেন্সিং এর দক্ষতার বিকাশ ঘটিয়ে নিজের একটা পরিচয় গড়তে চেয়েছিলেন তিনি। প্রথম দিকে পরিবারের কারও কাছ থেকে উৎসাহ পাননি এই কিশোর। তবুও নিজের প্রতি সম্পূর্ন বিশ্বাস রেখে পড়াশোনার পাশাপাশি প্রতিদিন অনুশীলনে বিভোর রইলেন কনক।

.

অবশেষে ১ মিনিট ৬ সেকেন্ড কপালে সারিবদ্ধ ৬০০ গ্লাস ও তার উপর একটি ফুটবল রেখে এই ইতিহাস গড়লেন নোয়াখালীর কিশোর কনক। এর আগে এই রেকর্ডটি ছিল ইতালির রোকো মারকিও ৫০০ গ্লাসের। নিজের এমন রেকর্ডে উচ্ছ্বসিত কনক বলেন, “যে কোন কাজে লেগে থাকতে হয়। আত্মবিশ্বাস ও পরিশ্রম মানুষকে সফল করতে পারে। ৫০০ যখন হল ভাবলাম ৬০০ দিয়েও আমি পারবো। অনেক চেষ্টার ফলে অবশেষে পেরেছি।”
এর আগে ফুটবল নিয়েও অনুশীলন করতেন তিনি। মাথায়, কপালে ও মুখে কলম নিয়ে সেই কলমের ডগায় অনেক সময় ধরে রাখতে পারতেন ফুটবল। কিন্তু ফুটবলের কোন দিকটা নিয়ে রেকর্ড গড়ার সুযোগ আছে সেটি অজানা থাকায় সারিবদ্ধ গ্লাসে অনুশীলন করে গড়লেন এই অনন্য রেকর্ড।

আগামীতে কনক ভাঙতে চান আরো কিছু ওয়ার্ল্ড রেকর্ড। কপালে ১৬ মিনিট গিটার রেখে রেকর্ড গড়ার অনুশীলনে ব্যস্ত কনক কর্মকার।

.

এর আগে গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে ফুটবল নিয়ে নান্দনিক সব কসরতে চট্টগ্রামের ১৮ বছরের কিশোর আশরাফুল ইসলাম গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে নিজের নাম লিখিয়েছেন। গড়েছিলেন গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড। পড়ালেখার পাশাপাশি এমন রেকর্ডে খুশি পরিবার, স্বজন ও এলাকাবাসী। জাতীয়ভাবে প্রচার ও পুষ্ঠপোষকতার আশ্বাস প্রশাসনের।

কোন মন্তব্য নেই