ভলিউম নিয়ে আসুন চুলে

0
.

ঘন, বাউন্সি, একগোছা চুল দেখতে যেমন ভালো লাগে, তেমনি সত্যি কথা বলতে, সেটা একজন মানুষের নিজের কাছেও ভালো লাগা এবং কনফিডেন্স এর বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু আজকাল আর সেই চুলের ভলিউম দেখা যাচ্ছে কই? ধুলো, দূষণ, কেমিকেল ইত্যাদির কারণে আমরা চুল হারিয়ে বসে আছি। আর পাতলা চুল নিয়ে নিজেদের কনফিডেন্স লেভেলও কমে যাচ্ছে অনেকটা। তাই বলে কি পাতলা চুল নিয়েই বসে থাকবেন? আজকে জানাবো, পাতলা চুলেও কীভাবে ভলিউম আনবেন তার কিছু টিপস এবং ট্রিকস।

(১) চুলে ভলিউম আনতে টিজ করা বাদ দিন। কারণ টিজ করতে চুল আরো ভেঙে যায়, যার ফলে চুল আরো পাতলা হয়ে যায়।

(২) চুলের কাট এ পরিবর্তন আনুন। চুলে দিন লেয়ার অথবা ভলিউম লেয়ার কাট। যা চুলকে ঘন দেখাতে সাহায্য করবে।

(৩) চুলে ভলিউম আনতে ব্যবহার করুন ড্রাই শ্যাম্পু। ড্রাই শ্যাম্পুগুলো চুলের গোড়া থেকে এক্সট্রা তেল দূর করে। এটি পাউডারী প্রোডাক্ট হওয়ায় চুলের গোড়ায় ভলিউম এর সৃষ্টি করে। তাই চুলে ভলিউম আনতে ড্রাই শ্যাম্পু ট্রাই করে দেখুন। ড্রাই শ্যাম্পু না থাকলে একটু বেবী পাউডার চুলের গোড়ায় ব্যবহার করে ভালোমতো চুল আচড়ে নিন, যাতে এক্সট্রা পাউডার ঝরে যায়। ইনস্ট্যান্ট ভলিউম আনতে এগুলো খুবই কাজে দেয়।

(৪) চটজলদি চুলে ভলিউম আনতে মাথার গোড়ার দিকের চুলে একটু হেয়ার স্প্রে লাগিয়ে নিন। তবে খুব বেশী না ব্যবহার করাই ভালো।

(৫) অনেকের চুল অনেক বেশী পাতলা থাকে বলে, সিথি কাটলে খুবই বাজে দেখায়। এজন্য সল্যুশন হলো, একটা ডার্ক গ্রে আইশ্যাডো ছোট একটা ব্রাশে নিয়ে সিথির উপরে এবং আশেপাশে লাগিয়ে নিন। এতে আপনার সিথি দেখতে আর বাজে লাগবে না এবং দেখে মনে হবে মাথায় অনেক চুল আছে।

(৬) নিয়মিত শ্যাম্পু করতে হবে চুলে। তবে সেটা প্রতিদিন না করাই ভালো। তবে চুলের গোড়ায় যেন তেলতেলে না হয় সেটা খেয়াল রাখবেন। কারণ চুলের গোড়ার তেল, চুলের ভলিউম নষ্ট করে।

(৭) নিয়মিত চুলের আগা কাটবেন। চুলের আগা নিয়মিত না কাটলে তা দেখতে একটা সময় লেজ লেজ লাগে। যা দেখতে খারাপ লাগে এবং চুল অল্প মনে হয়।

(৮) ঘুমানোর আগে মাথার উপরে একটা বান বেধে নিবেন। এতে সকাল বেলা যখন চুল খুলবেন, চুল দেখতে অনেক বেশী ঘন এবং বাউন্সি মনে হবে।

(৯) এবার জানাবো একটা নতুন ট্রিকস। এই ট্রিকসটি চুলে ভলিউম আনার ক্ষেত্রে খুবই কার্যকর। আমরা তো জানি, শ্যাম্পু করার পর অলওয়েজ কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু এখন কার নিয়মটা একটু উল্টো! এখন আগে কন্ডিশনার এবং এরপর শ্যাম্পু ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে। প্রথমে আপনার চুলগুলোতে পানি স্প্রে করে নিন। পুরো চুল হালকা ভেজা হয়ে গেলে এরপর কন্ডিশনার লাগান। ১৫-২০ মিনিট রেখে এরপর শ্যাম্পু করে নিন।

এই ট্রিকসটি ফলো করে দেখুন, আপনার চুল আগের থেকে বেশী ভলিউম দিবে। এই তো জেনে নিলেন, চুলে কীভাবে ভলিউম আনবেন তার কিছু টিপস এবং ট্রিকস। আশা করছি আপনাদের অনেক বেশী হেল্প হবে।

কোন মন্তব্য নেই