সাত কাহন লাল লিপস্টিকের

0
ব্রেকিং নিউজ
  • *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

.

ভেলভেট লাল, ডিপ ওয়াইন বা যে কালারের লিপস্টিকই হোকনা কেন গাঁঢ় লাল রংয়ের ক্লাসিক লিপস্টিকের সাথে কোনকিছুরই তুলনা চলেনা। আপনার ঠোঁটের সাথে মানিয়ে যায় এমন সেড বেছে নিতে পারলেই হলো।

নিচে কিছু টিপস দেওয়া হলো যা আপনাকে সাহায্য করবে আপনার মানানসই সেডটি বেছে নিতে। মনে রাখবেন বেমানান লিপস্টিক আপনার পুরো সাজগোজ মাটি করে দিতে পারে। তাই খুবই সতর্কতার সাথে লিপিস্টিকের সেড পছন্দ করুন।

ডার্ক স্কীন টোনঃ

ব্যেসিক নিয়ম হলো যতবেশী গাঢ় ত্বক তত গাঢ় রংএর লাল সেড। সাধারণত কমলা, বাদামী অথবা সোনালী ফ্যামিলি থেকে বেছে নিতে পারেন আপনার উপোযোগী সেড। ঠোঁটকে বেশী আকষর্ণীয় করতে গ্লসি লালও ব্যবহার করতে পারেন।

ফর্সা ও মাঝারী স্কিন টোনঃ
বাদামী লাল বিশেষ করে যে সব লিপস্টিকের সাথে একটু বেরী আছে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। একটু বেশীকরে ফুটিয়ে তুলতে চেরি রেড বা লিপ গ্লস ব্যবহার করুন।

সাধারণ টিপসঃ

ট্রায়াল এ্যন্ড এরর পদ্ধতিতে খুঁজে বের করুন আপনর ত্বকের সাথে মানানসই লিপস্টিকের সেড। প্রতি সেডের লিপস্টিক একটু করে ঠোঁটে লাগিয়ে ঘরের বাইরে গিয়ে দেখুন প্রাকৃতিক আলোতে কেমন লাগে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ কৃত্রিম আলোতে বিভ্রান্ত হতে পারেন তাই সঠিক সেডের লিপস্টিক বেছে নিতে এটুকু কষ্ট করতেই হবে।

একটা সেডের লিপস্টিক তুলে আর একটা সেড লাগানোর আগে প্রায় সবাই টিস্যু পেপার ব্যবহার করে থাকেন কিন্তু টিস্যু দিয়ে ঠোট মুছলে এমনিতেই ঠোঁট লাল হয়ে যায় তাই সঠিক সেড বেছে নিতে হলে টিস্যুর পরিরর্তে মেকাপ রিমুভার ব্যবহার করতে হবে।

আপনার ঠোঁট পাতলা হলে উজ্জ্বল সেড বেছে নিন তাতে ঠোঁট জোড়া একটু বর্ধিত লাগবে।
আপনার ঠোঁট বড় হলে একটু বাদামী টিন্টযুক্ত ডার্ক সেড বেছে নিন।
দাঁতের রং হলুদাভ হলে নীলচে লাল ব্যবহার করুন এতে করে দাঁতের রং একটু সাদা দেখাবে।
যেকোন লিপিস্টিকের টোন একটু হালকা করতে আংগুল দিয়ে কয়েক বার ঘঁসে স্বচ্ছ লিপ গ্লস মেখে নিন।

কীভাবে লাগাবেনঃ
একঃ
একটা লাল পেন্সিল দিয়ে প্রথমে ঠোঁটের চারপাশটা খুব সাবধানে নিঁখুত করে এঁকে ফেলুন। তারপর পুরো ঠোঁটই ভরে ফেলুন। প্রয়োজনে একটু এদিক ওদিক করে ইচ্ছামত ঠোঁটের আকার দিতে পারেন। তবে ঠোঁটের আকৃতি বেশী পরিবর্তন না করাই ভাল তাতে ঠোঁট বিকৃত দেখাতে পারে।
দুইঃ ভাল করে এক পরত লিপস্টিক দিয়ে নিন।
তিনঃ
দুটি ঠোট পরস্পরের সাথে চেপে উপর নিচ করুন যাতে লিপস্টিকটা মসৃণ ভাবে বসে যায় এবং অতিরিক্ত তেল চলে যায়। আবার আর এক পরত লিপিস্টক দিয়ে নিন।
চারঃ
আংগুল দিয়ে আলতো করে একটু ঘষে পছন্দমত একটি লিপ গ্লস দিয়ে দিন।

কোন মন্তব্য নেই