“ছাত্রলীগ নেত্রীর প্রশ্ন: মারল কারা, তদন্ত করবে কারা”

4
ব্রেকিং নিউজ
  •  

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

.

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের ওপর হামলার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আহত এক নেত্রী।
মঙ্গলবার নিজের ফেসবুকে বিএম লিপি আক্তার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে তদন্ত নাটক বাদ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের এই সভাপতি লিখেছেন, ‘নাটক বাদ দিন, আপনাদের নাটক কেউ দেখতে চায় না। মারল কারা আর তদন্ত করবে কারা? মারার নির্দেশ দিছে কারা, তদন্তের নির্দেশ দিছে কারা?’

তিনি লেখেন, ‘ভণ্ডামি বাদ দিয়ে, যারা বিগত ৮/৯ মাস আপনাদের চামচামি করছে, যাদের কেউ চিনে না, জীবনের প্রথম পোস্ট তাও আবার সম্পাদক দিছেন এই কমিটি ভেঙে যোগ্য, সাংগঠনিক দক্ষ লোক যারা বিগত দিনে রাজপথে ছিল, তাদের দিয়ে কমিটি করুন।’
ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া বিষয়ক সম্পাদক লিপি হুঁশিয়ারি দেন, ‘নয়তো খুব খারাপ সময় পার করতে হবে আপনাদের।’

এর আগে গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন পদবঞ্চিতরা। মিছিলটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে দিয়ে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভের সময় মধুর ক্যান্টিনের সামনে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

পরে রাতে পদবঞ্চিতরা মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে তাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন নারীকর্মীসহ অনেকে আহত হন।
পদবঞ্চিত নেতাকর্মীদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শোভন ও সাধারণ সম্পাদক রাব্বানীর অনুসারি ও নতুন কমিটিতে পদপ্রাপ্তরা তাদের ওপর হামলা করেছে।

এ ঘটনায় রাতেই ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। সিনিয়র সহ-সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের নেতৃত্বে ওই কমিটিকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- ফুয়াদ হোসেন শাহাদাত ও পল্লব কুমার বর্মন।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘যারা এই হামলা করেছে, তারা চরম অপরাধ করেছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনা হবে।’