ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের আল্টিমেটাম

0
.

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ঠাঁই না পাওয়া পদবঞ্চিত নেতারা এবার আল্টিমেটাম দিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে তারা ৪৮ ঘণ্টার এ আল্টিমেটাম দেন। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের ঢাবি শামসুন্নাহার হলের সভাপতি নিপু ইসলাম তন্বী বলেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ‘বিতর্কিত’ ওই কমিটি ভেঙে না দিলে বিক্ষোভ, অনশনসহ আমরা গণপদত্যাগ করবো।

এ সময় রোকেয়া হলের সভাপতি লিপি আক্তার বলেন, আমরা এ তদন্ত কমিটি মানি না। যারা হামলা করেছে তাদের দিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শোভন-রাব্বানীর প্রত্যক্ষ নির্দেশে আমাদের ওপর হামলা চালানো হলো আর তাদের দিয়েই তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। আমিসহ আমরা সবাই বিশ্বাস করি যদি বঙ্গবন্ধু কন্যার কাছে সঠিক তথ্য যায় তাহলে তিনি বিতর্কিত এ কমিটি ভেঙে দেবেন।

জসীম উদ্দিন হলের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান বলেন, আমরা কোনো আওয়ামী লীগ নেতার আশ্বাসে আশ্বস্ত হতে চাই না আর। ডাকসু নির্বাচনের আগেও তারা আমাদের বিভিন্নভাবে আশ্বস্ত করেছিলেন। কিন্তু তারা তাদের ওয়াদা ভঙ্গ করেছেন। আমরা এখন প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে তিনি যে নির্দেশনা দেবেন আমরা তা মেনে নেব অন্য কোনো নেতার নয়।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন পদবঞ্চিতরা। মিছিলটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে দিয়ে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভের সময় মধুর ক্যান্টিনের সামনে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরে রাতে পদবঞ্চিতরা মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে তাদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন নারীকর্মীসহ অনেকে আহত হন।

এ সময় পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা অভিযোগ করে বলেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শোভন ও সাধারণ সম্পাদক রাব্বানীর অনুসারি ও নতুন কমিটিতে পদপ্রাপ্তরা তাদের ওপর হামলা করেছে।

তারা দাবি করেন, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে অছাত্র, শিবির-ছাত্রদলের কর্মী, বিবাহিত ও বিতর্কিতদের স্থান দেয়া হয়েছে। ত্যাগীদের পদবঞ্চিত করা হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই