ধর্ষণ চেষ্টার আসামীকে ছেড়ে দেয়ায় আ’লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান জেলহাজতে

0
.

রাজশাহীতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্ত যুবককে ‘কানধরা’ সাজা দিয়ে ছেড়ে দেওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার সন্ধ্যায় জেলার বাগমারা উপজেলার যোগীপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামালকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশ জানায়, উপজেলার যোগিপাড়া ইউনিয়নের বারুইহাটি গ্রামে গত ৩ মে বারো বছরের এক স্কুলছাত্রীকে ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় তৌহিদ আলী (২৫) নামে এক যুবক। পরে স্থানীয়রা তাকে হাতেনাতে আটক করে। এনিয়ে ইউপি চেযারম্যান সালিশ বসিয়ে ওই যুবককে কানধরে উঠবস করার সাজা দিয়ে ছেড়ে দেন। বিষয়টি সংবাদ মাধ্যমে এলে গত ৫ মে স্কুলছাত্রীর দাদা বাদি হয়ে বাগমারা থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ তৌহিদকে গ্রেফতার করে।

বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, তৌহিদ আলী একাই এই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। মামলার তদন্তে তাকে কানধরে উঠবস করার সাজা দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল সহযোগিতা করেছেন। অথচ এই ঘটনাটি ছিলো আপোষ অযোগ্য অপরাধ। একারণে ইউপি চেয়ারম্যানকেও আসামি করা হয়। বুধবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই