বায়োজিদে তারাবি পড়ে মসজিদ থেকে বের হওয়ার পর যুবককে কুপিয়ে আহত

0
.

চট্টগ্রাম মহানগরীর বায়োজিদ থানার ওয়াজেদিয়া এলাকায় স্থানীয় একটি মসজিদের ইমামকে গালাগাল করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে তারাবি নামাজ পড়ে বের হলে মনির (২৩) নামে এক যুবককে রামদা দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় এ হামলাা ঘটনা ঘটেছে।

বায়োজিদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান খন্দকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রিপন নামে এক যুবক মসজিদের ইমামকে গালাগাল করার ঘটনা নিয়ে সমাজের সর্দারকে বিচার দিলে আজ রাতে ওই মসজিদে বিচার ডাকা হয়। তখন রিপন বিষয়টি অস্বিকার করলে স্বাক্ষী হিসেবে মনির নামে এক যুবক বলে তুমি গালাগাল করেছো আমি স্বাক্ষী।  এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রিপন মসজিদ থেকে চলে যায়। পরে তারাবির নামাজ শেষ হলে রিপন দলবল নিয়ে এসে মনিরকে কুপিয়ে আহত করে। তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মো. রহিম নামে স্খানীয় একজন পাঠক ডট নিউজকে বলেন, কিছুদিন আগে আবু বক্কর সিদ্দিক আল ইসলামিয়া মাদ্রাসারা এক শিশু নিহত হওয়ার পর মাদ্রাসাটি এক পক্ষ দখল করে নেয়। এনিয়ে এলাকা বেশ কিছু ধরে দুইপক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।  গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে নিদের্শে প্রশাসন দখল দারদের কাছ থেকে মাদ্রাসাটি আবার কর্তৃপক্ষের কাছে ফেরত দেয়।  যে ইমামকে গালাগাল করা হয়েছে তার নাম মোকসুদ। তিনি আবার বক্কর আবু সিদ্দীক মাদ্রাসারা শিক্ষক।  মূলত পূর্বের ঘটনার জের ধরে আজকে এ ঘটনা ঘটেছে।

আহত মনির এলাকার বাদশা মিয়ার ছেলে। অপর দিকে অভিযুক্ত রিপন ওয়াজেদিয়া আনু মুন্সির বাড়ীর রাজা মিয়ার ছেলে।  ঘটনার পর সে পালিয়ে যায়।

উল্লেখ্য বায়েজিদ থানার অক্সিজেন এলাকায় থেকে ছাত্র গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার সকালে হাবিবুর রহমানের (১২) নামে এক আবাসিক শিক্ষর্থী গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরিবারে পক্ষ থেকে হত্যা মামলা দায়েরের পর পুলিশ অধ্যক্ষসহ ৫ শিক্ষককে গ্রেফতার করে। স্থানীয়রা মাদ্রাসা বন্ধ করে দেয় এক জনপ্রতিনিধির নেতৃত্বে।

এ অবস্থায় স্থানীয় ওয়ার্ড কাউান্সিলর কফিল উদ্দিন মাদাসাটি দখল করে রেখেছে বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়সহ পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ ও সংবাদ সম্মেলন করে মাদ্রাসা কর্তৃৃপক্ষ।

পরে গতকাল বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের নির্দেশে পুলিশ মাদ্রাসা দখলমুক্ত করে কর্তৃপক্ষকে ফিরিয়ে দেয়।

 

কোন মন্তব্য নেই