বিএনপি বিভেদ-বিভাজন ও হতাশায় বিশ্বাস করে না : রিজভী

0
ব্রেকিং নিউজ
  • *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    *উদ্বোধন হল বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

.

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বিএনপি বিভেদ-বিভাজন ও হতাশায় বিশ্বাস করে না। খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে দেশে গণতন্ত্রের শুভদিন বিএনপিই ফিরিয়ে আনবেই। মানুষ ফিরে পাবে তার নাগরিক স্বাধীনতা। দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব হবে আরও শক্তিশালী।

আজ শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

রিজভী আরও বলেন, আমাদের চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ার নয়। কোনো বাধা-বিপত্তি-প্রতিবন্ধকতা-উস্কানিমূলক কথাবার্তা, কোনো ষড়যন্ত্র আমাদের রুখতে পারবে না। বর্তমান শ্বাসরোধী দুঃশাসনের অবসান হবেই।  ‘অবশ্যই বিএনপির নেতৃত্বে রাষ্ট্রের প্রকৃত বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবেই। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধারের আন্দোলন সফল হবে ইনশাল্লাহ।’

তিনি বলেন, প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও বিএনপি তার সাংগঠনিক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। নেতাকর্মীরা নির্যাতন-নিপীড়ন সহ্য করেও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছে।

কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে সুপরিকল্পিত ও দূরদর্শী সিদ্ধান্তে দল পরিচালনা করছেন বলে রিজভী জানান।

তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও কার্যকর করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
রিজভী বলেন, তারেক রহমান বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনসমূহের সর্বস্তরের নেতাদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কথা বলছেন। জেলা নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। তাদের যৌক্তিক পরামর্শ গ্রহণ করে বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় কমিটিগুলো গঠনতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় পুনর্গঠন ও সাংগঠনিক কার্যক্রম তত্ত্বাবধান করছেন।

তিনি আরও বলেন, সারা দেশে কাউন্সিল হচ্ছে। তারেক রহমানের নির্দেশনায় সারা দেশে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে এসেছে নতুন গতি। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের লড়াইয়ে প্রস্তুত হচ্ছেন সর্বস্তরের নেতাকর্মী-সমর্থকরা।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, লক্ষ্যে পৌঁছাতে বাধা-বিপত্তি আসবেই। এসব অতিক্রম করে আমাদেরকে শিড়দাঁড়া সোজা করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

সড়ক-মহাসড়ক নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এর দেয়া বক্তব্যকে জনগণের সাথে তামাশা মাত্র উল্লেখ করে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, সড়কের অবস্থা এতটাই ভালো যে ঢাকার অদূরে গাজীপুর পৌঁছাতেই সময় লাগে ৪-৫ ঘন্টা। উত্তরাঞ্চলের অবস্থা আরো নাজুক।
তিনি বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক, ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক, ঢাকা-কুষ্টিয়াসহ দেশের সকল দেশের সকল সড়ক-মহাসড়কগুলোতে বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে।

রিজভী বলেন, শুক্রবার শুরুর দিনে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় ঘটেছে। লঞ্চ টার্মিনালগুলো থেকে লঞ্চ ছাড়ছে দেরি করে। লঞ্চ ও বাস যাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। ঈদ যাত্রার শুরুতেই মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছে।
তিনি বলেন, কথায় আছে কয়লা ধুলেও ময়লা যায় না, আওয়ামী লীগ নেতাদের অবস্থাও তাই। মানুষের দুর্ভোগ নিয়ে তার প্রতিনিয়ত তামাশা করে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিনা রহমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা প্রোফেসর শাহেদা রফিক, বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই