প্রস্তাবিত বাজেট অর্থনীতিতে আর্থিক ঝুঁকি বাড়াবে- সুফিয়ান

0
.

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিঃ সহ সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেছেন, দেশের অর্থনীতির ব্যবস্থাপনা একটি লুটেরা শ্রেণীর হাতে জিম্মি হয়ে আছে। তারাই অর্থনীতি নিয়ন্ত্রণ করছে। বাজেট প্রণয়ন করছে। প্রস্তাবিত বাজেট অর্থনীতিতে আর্থিক ঝুঁকি বাড়াবে। এই বাজেট ঋণ নির্ভর। করের মাধ্যমে, ভ্যাট ও বিভিন্ন মাধ্যমে সরকার মানুষের পকেট থেকে টাকা কেটে নেবে। সরকার দেশকে ঋণ নির্ভর অর্থনীতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে। বাস্তবতার সাথে এই বাজেটের কোন মিল নেই। এটা কর্জ করে ঘি খাওয়ার বাজেট।

তিনি আজ ১৪ জুন শুক্রবার বিকালে বোয়ালখালীর পোপাদিয়া ইউনিয়ন বিএনপির উদ্যোগে খোন্দকার পাড়াস্থ মাঠে ঈদপুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রামের দুঃখ খ্যাত, বোয়ালখালীবাসীর প্রাণের দাবী কালুরঘাট সেতু পুননির্মাণের ব্যাপারে বাজেটে সুনির্দিষ্ট কোন প্রস্তাবনা নেই। এটা চট্টগ্রামবাসীর প্রতি বিমাতাসূলভ আচরণ। তিনি বলেন, বাজেটে মোবাইলে কথা বলার উপর ভ্যাট আরোপের ফলে ১০০ টাকায় ২৭ টাকা কর্তনের প্রস্তাব সাধারণ মানুষের পকেট থেকে টাকা লুটপাটের ব্যবস্থা। মোবাইলে কর আরোপের ফলে দেশের প্রত্যেক শ্রেণীর মানুষকে জোর করে করের আওতায় নিয়ে আসলো। তিনি বলেন, বিগত ১০ বছরে সরকার দলীয় লোকজন ব্যাংক ও শেয়ার বাজার ধ্বংস করে বিভিন্নভাবে লুটপাট করে অবৈধভাবে যে টাকা উপার্জন করেছেন তা সাদা করার জন্যই আবাসন খাতে কাল টাকা সাদা করার সুযোগ দিয়েছে। তিনি রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যার্থ এই ভোট ডাকাত সরকারের বিরুদ্ধে জনগণকে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পরার আহবান জানান।

ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি এস এম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও বোয়ালখালী উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোস্তাক আহমদ খান, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন লিপু, বোয়ালখালী পৌরসভা বিএনপির সভাপতি ও মেয়র হাজী আবুল কালাম আবু, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নূরনবী চৌধুরী, আবদুল হালিম, পৌরসভা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী ইসহাক চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা কৃষক দলের সভাপতি সৈয়দ সাইফুদ্দিন।

পোপাদিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সুজনের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আমুচিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি এম এ মান্নান, মুবিনুল হক বাদশা মেম্বার, হাজী আহমদ নবী, আবুল মনসুর, ডা. মহসিন খান তরুণ, মহানগর যুবদলের সহ সভাপতি ম, হামিদ, দক্ষিণ জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আবদুল মান্নান, অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ গুলজার হোসেন, আরিফুল ইসলাম, মহসিন খোকন, গোলাম হোসেন নান্নু, আবুল বশর চৌধুরী, আবদুল্লাহ আল মামুন জুয়েল, মতিউর রহমান রাসেল, এনামুল হক সজীব, আমির হামজা, এস এম শাহজাদা, জাবেদ হোসেন পারভেজ, সুলতান আহমদ জিকু, মো. আজম, মো. মামুন, ওমর ফারুক সরওয়ার, বেলাল হোসেন, ইফতেখারুজ্জামন রিপন, ইকবাল হোসেন সোহেল, মো. এরফান, মো. জিসান, মো. আফজাল হোসেন, রোকন উদ্দিন প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই